পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বাবুল দত্তের সঙ্গে প্রতিবেশী স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক সদস্য সুবল চন্দ্র দেবের বিরোধ চলে আসছিল। আজ সকাল সাতটার দিকে বাবুল দত্ত তাঁর ফিশারিতে সুবল দেবের বাড়ির বৃষ্টির পানি নামার প্রতিবাদ করেন। এ সময় উভয় পরিবারের মধ্যে ঝগড়া হয়। পরে স্থানীয় লোকজন তাঁদের থামিয়ে দেন। ঘণ্টাখানেক পর আবারও দুই পক্ষের মধ্যে ঝগড়া বাধে। একপর্যায়ে দুই পক্ষ দেশি অস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। প্রতিপক্ষের বল্লমের আঘাতে বাবুল দত্তসহ পাঁচজন আহত হন। স্থানীয় লোকজন তাঁদের উদ্ধার করে কেন্দুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক বাবুল দত্তকে মৃত ঘোষণা করেন। খবর পেয়ে নেত্রকোনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) মোহাম্মদ হারুন অর রশিদ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

কেন্দুয়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মীর মাহবুবুর রহমান বলেন, লাশটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এই ঘটনায় জড়িত ব্যক্তিদের আটক করতে পুলিশ অভিযান চালাচ্ছে। এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এ নিয়ে থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন