বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

যাত্রীরা এই আইডি কিংবা কিউআর কোড স্ক্যান করে অটোরিকশার চালক, মালিক সম্পর্কে তথ্য জানতে পারবেন। এটি অটোরিকশার সামনের কাচে সাঁটানো থাকবে, যা দেখে যাত্রীরা বুঝতে পারবেন গাড়িটি পুলিশ ভেরিফায়েড।

সালেহ মোহাম্মদ তানভীর আরও বলেছেন, প্রয়োজনীয় তথ্য সংগ্রহের জন্য প্রাথমিকভাবে নগরের টাইগারপাস, নিউমার্কেট, বহদ্দারহাট, জিইসি মোড়, বাদামতলী, অলংকার মোড়, মইজ্জারটেক ও সিমেন্ট ক্রসিং ট্রাফিক পুলিশ বক্সে বুথ স্থাপন করা হয়েছে। গাড়ির মালিকের ক্ষেত্রে জাতীয় পরিচয়পত্র, গাড়ির নিবন্ধন সনদ, ফিটনেস সনদ, ট্যাক্স টোকেন ও রুট পারমিট এবং চালকের ক্ষেত্রে ড্রাইভিং সনদ ও জাতীয় পরিচয়পত্র লাগবে।

সিএমপি কমিশনার আরও বলেছেন, যাত্রীদের এ জন্য স্মার্টফোনে ‘হ্যালো সিএমপি’ অ্যাপস ইনস্টল করতে হবে। যাত্রীরা গাড়ির প্রিন্টেড কপিতে থাকা কিউআর কোডটি ‘হ্যালো সিএমপি’ অ্যাপে স্ক্যান করার সঙ্গে সঙ্গে চালক ও মালিক সম্পর্কে জানতে পারবেন। যাঁদের স্মার্টফোন থাকবে না, তাঁরা চাইলেই নিউম্যারিক কোডটি তাঁদের ফিচার (বাটন) ফোন থেকে পুলিশের নির্ধারিত নম্বরে এসএমএস (খুদে বার্তা) করতে পারবেন। ফিরতি এসএমএসেই জানিয়ে দেওয়া হবে চালক এবং মালিক ভেরিফায়েড কি না।

যাত্রীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতেই ‘আমার গাড়ি নিরাপদ’ নামের কার্যক্রমটি চালু করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন সিএমপি কমিশনার সালেহ মোহাম্মদ তানভীর। তিনি বলেছেন, অনেক সময় যাত্রীরা তাঁদের মূল্যবান জিনিসপত্র গাড়িতে ফেলে যান। যাত্রীরা যদি নিউম্যারিক আইডি কিংবা কিউআর কোড স্ক্যান করে রাখেন, তাহলে পরবর্তী সময়ে অটোরিকশাটিকে শনাক্ত করা সহজ হবে। এ ছাড়া এই অ্যাপস চালু হলে অটোরিকশা ব্যবহার করে সংঘটিত অপরাধ নিয়ন্ত্রণে থাকবে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার (ট্রাফিক) শ্যামল কুমার নাথ, অতিরিক্ত কমিশনার (অপরাধ ও অভিযান) মো. শামসুল আলম, অতিরিক্ত কমিশনার (প্রশাসন ও অর্থ) সানা শামীনুর রহমান প্রমুখ।

গত বৃহস্পতিবার (২ ডিসেম্বর) ‘প্রথম আলো’তে ‘চালকের বেশে ছিনতাই’ শিরোনামে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। সেখানে বলা হয়, চট্টগ্রাম নগরে সিএনজিচালিত অটোরিকশার কিছু চালক মাঝপথে গাড়ি নষ্ট হওয়ার কথা বলে হাতিয়ে নিচ্ছেন যাত্রীদের মূল্যবান জিনিসপত্র।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন