বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

এ ঘটনার পর ২০২০ সালের ৬ অক্টোবর জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের তদন্ত দলের প্রধান মানবাধিকার কমিশনের পরিচালক (অভিযোগ ও তদন্ত) আল-মাহমুদ ফয়জুল কবীর নোয়াখালীতে এসে ওই নারীর সঙ্গে দেখা করেন। তখন ওই নারী তাঁর কাছে অভিযোগ করেন, বিবস্ত্র করে নির্যাতনের আগে দেলোয়ার বাহিনীর প্রধান দেলোয়ার তাঁকে দুই দফা ধর্ষণ করেছেন। এর মধ্যে প্রথম দফা ধর্ষণ করে ২০১৯ সালের ৫ অক্টোবর, দ্বিতীয়বার ২০২০ সালের ৭ এপ্রিল। ধর্ষণের সময় দেলোয়ারের সহযোগী আবুল কালামও তাঁকে ধর্ষণের চেষ্টা করেন।

সূত্র জানায়, ওই দিন রাতেই (৬ অক্টোবর, ২০২০) বেগমগঞ্জ থানায় ওই নারী বাদী হয়ে দেলোয়ার হোসেন ও তাঁর সহযোগী আবুল কালামকে আসামি করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা করেন। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা পিবিআইর পরিদর্শক সিরাজুল মোস্তফা অভিযুক্ত দুই আসামির বিরুদ্ধে গত বছরের ১৫ ডিসেম্বর আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন।

এরপর গত ১৭ ফেব্রুয়ারি অভিযুক্ত দুই আসামির বিরুদ্ধে নোয়াখালী নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-১–এ অভিযোগ গঠন করা হয়। গত প্রায় সাত মাসে সাক্ষ্য গ্রহণ, শুনানি ও যুক্তিতর্ক শেষে গত বৃহস্পতিবার মামলাটির রায় ঘোষণার জন্য দিন ধার্য করেন ট্রাইব্যুনালের বিচারক (জেলা জজ) মো. জয়নাল আবদীন। মামলায় অভিযুক্ত দুই আসামি দেলোয়ার ও আবুল কালাম কারাগারে রয়েছেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন