পৌরসভার বালুয়াভাটা গ্রামের স্বপ্নীল ছাত্রাবাসের পরিচালক সুলতানা পারভিন প্রথম আলোকে বলেন, ‘আমাদের ছাত্রাবাসে ৩৫ জন ছাত্র রয়েছে। গতকাল সন্ধ্যায় বদরগঞ্জ থানার তিন-চারজন পুলিশ এসে মেস বন্ধ রাখতে বলেন। কারণ জানতে চাইলে একজন পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, রংপুরে বিএনপির সমাবেশ। তাই মেসের সবাইকে বাড়ি চলে যেতে হবে। কেউ বিএনপির সমাবেশে যেতে পারবে না। ৩০ অক্টোবর মেস খোলা যাবে।’

আজ বিকেলে ওই গ্রামের কেবিএম ছাত্রাবাস, মণ্ডল ছাত্রাবাস, লিটন ভিলাসহ ১০টি মেসের সামনে গিয়ে দেখা যায়, ফটকে তালা ঝুলছে।

অন্তত পাঁচ মেসের মালিক জানিয়েছেন, বদরগঞ্জ থানার উপপরিদর্শক (এসআই) রেজাউল করিম আকন্দের নেতৃত্বে একদল পুলিশ গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় মেসগুলোতে গিয়ে তা আগামীকাল শনিবার রাত পর্যন্ত বন্ধ রাখার নির্দেশ দেন। এ সময় মেসে অবস্থানরত শিক্ষার্থীদের রংপুরে বিএনপির সমাবেশে যেতেও বারণ করে পুলিশ।

মণ্ডল ছাত্রাবাসের কলেজছাত্র লাবু মিয়া বলেন, ‘আমি আজ রাতে এসে দেখি মেসের সব রুমে তালা দেওয়া। আশপাশে জিজ্ঞেস করে জানতে পারি, পুলিশের নির্দেশে মেস বন্ধ করা হয়েছে।’

এ বিষয়ে বদরগঞ্জ থানার এসআই রেজাউল করিম আকন্দ মুঠোফোনে বলেন, যা করা হয়েছে, তা থানার ওসি সাহেবের নির্দেশেই।