শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, বিশ্ববিদ্যালয়ের জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড বায়োটেকনোলজি বিভাগের ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী মো. রায়হানুল ফিরদাউস গতকাল রাত সাড়ে আটটার দিকে মুঠোফোনে কথা বলতে বলতে আমীর আলী হল প্রাধ্যক্ষের বাসভবনের সামনে দিয়ে শহীদ সোহরাওয়ার্দী হলের দিকে যাচ্ছিলেন। এমন সময় পেছন দিক থেকে দ্রুতগতিতে মোটরসাইকেল নিয়ে আসা দুই তরুণ ফোন ছিনিয়ে নেন।

ফিরদাউস ‘ধর ধর’ বলে চিৎকার করেন। রাস্তায় থাকা অন্য শিক্ষার্থীরা ফিরদাউসের আহ্বানে সাড়া দেন। মোটরসাইকেল নিয়ে ওই দুই তরুণ শহীদ জিয়াউর রহমান হলের সামনে গেলে সেখানে থাকা শিক্ষার্থীরা মোটরসাইকেলের দিকে বেঞ্চ ছুড়ে মারেন। এতে মোটরসাইকেল নিয়ে তাঁরা পড়ে যান। পরে শিক্ষার্থীরা উত্তেজিত হয়ে তাঁদের মারধর করেন এবং মোটরসাইকেলটি পুড়িয়ে দেন। পরে প্রক্টরিয়াল বডির সদস্যরা এসে দুজনকে প্রক্টর দপ্তরে নিয়ে যান। রাত সাড়ে ১০টার দিকে প্রক্টর দপ্তর দুজনকে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করে।

প্রক্টর আসাবুল হক জানান, তিনি বিষয়টি জানার পরই জিয়া হলের সামনে যান। এ সময় শিক্ষার্থীরা উত্তেজিত ছিলেন। তাঁরা দুজনকে মেরেছেন। পরে দুজনকে প্রক্টর দপ্তরে আনা হয়। এরপর পুলিশে দেওয়া হয়। এ ব্যাপারে ছিনতাইয়ের শিকার শিক্ষার্থী থানায় অভিযোগ দেবেন।