নগরের চৌহাট্টা এলাকার সিলেট সরকারি আলিয়া মাদ্রাসা মাঠে বিএনপির গণসমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। বেলা সাড়ে ১১টা থেকে সমাবেশ শুরু হয়ে বিকেল পাঁচটার দিকে শেষ হয়। বেলা দেড়টার দিকে মঞ্চে আসেন প্রধান অতিথি মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বিকেল ৪টা ৩৪ মিনিটে বক্তব্য শুরু করে ৪টা ৫৮ মিনিটে শেষ করেন।

বিএনপির মহাসচিবের বক্তব্য দেওয়ার সময় বিকেল পৌনে পাঁচটার দিকে জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রাহেল সিরাজের নেতৃত্বে ২০ থেকে ২৫টি মোটরসাইকেলে একদল নেতা-কর্মী চৌহাট্টা এলাকা অতিক্রম করেন। চৌহাট্টা থেকে বিএনপির সমাবেশস্থল মাত্র ২০০ গজ দূরে।

ছাত্রলীগ জানায়, বিকেল সাড়ে চারটা থেকে সাড়ে পাঁচটা পর্যন্ত নগরের চৌকিদেখী, আম্বরখানা, চৌহাট্টা, জিন্দাবাজার, বন্দরবাজার, শাহী ঈদগাহ ও নয়াসড়ক এলাকা প্রদক্ষিণ করেন নেতা-কর্মীরা। একই সময়ে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি নাজমুল ইসলামের নেতৃত্বে ছাত্রলীগের আরেকটি অংশ ২০ থেকে ২৫টি মোটরসাইকেল নিয়ে নগরের টিলাগড় এলাকা থেকে জিন্দাবাজার এলাকা পর্যন্ত ‘মহড়া’ দেয়। তবে ছাত্রলীগের কোনো পক্ষই মহড়ার সময় স্লোগান দেয়নি। মহড়ার সময় আশপাশের এলাকায় অপ্রীতিকর ঘটনার শঙ্কা থাকলেও এমন কোনো ঘটনা ঘটেনি।

জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রাহেল সিরাজ বলেন, বিএনপির কর্মসূচি ঘিরে নগরে কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটে কি না, সেটি দেখতেই তাঁরা মোটরসাইকেল নিয়ে মহড়া দিয়েছেন। জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি নাজমুল হোসেন প্রথম আলোকে বলেন, কোনো উদ্দেশ্য ছাড়াই তাঁরা নগরে ‘মহড়া’ দিয়েছেন।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার বিকেলে জেলা ও মহানগর ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা হাজারো মোটরসাইকেল নিয়ে নগরে দফায় দফায় ‘শোডাউন’ করেছিলেন। বিএনপির গণসমাবেশ সামনে রেখে নিজেদের অবস্থান জানান দিতেই ওই দিন মোটরসাইকেল শোডাউন করেন বলেন ছাত্রলীগের নেতারা জানিয়েছিলেন।