এর আগে দুর্ঘটনাস্থলে মারা যাওয়া দুজন হলেন কালিয়াকৈর পরিবহনের বাসচালক গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার সুজন মিয়া (৩৫) ও নওগাঁর নিয়ামতপুর উপজেলার শহিদুল ইসলামের স্ত্রী ফেন্সি বেগম (৪০)। ফেন্সি বেগম ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা নওগাঁ ট্রাভেলসের নওগাঁগামী যাত্রী ছিলেন। গতকাল রাত ৯টার দিকে তাঁদের দুজনের পরিচয় শনাক্ত করে পুলিশ।

শেরপুর হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির উপপরিদর্শক (এসআই) রোজিবুল ইসলাম বলেন, বাসচালক সুজন মিয়া ছাড়া নিহত অন্য তিনজন পোশাক কারখানার কর্মী। এ দুর্ঘটনায় কালিয়াকৈর পরিবহনের বাসচালক ঘটনাস্থলেই মারা যান। নিহত ব্যক্তিদের পরিচয় নিশ্চিত হওয়ার পর তাঁদের স্বজনদের কাছে লাশ হস্তান্তর করা হয়েছে। এ ছাড়া বাসচালকের লাশ আজ শনিবার সকাল ১০টায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

শেরপুর হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক এ কে এম বানিউল আনাম বলেন, দুর্ঘটনাকবলিত দুটি বাস পুলিশি হেফাজতে রয়েছে। এ ঘটনায় গতকাল রাতে নিহত মশিউর রহমানের বড় ভাই মিজানুর রহমান বাদী মামলা করেছেন। মামলায় দুর্ঘটনাকবলিত দুই বাসের চালককে আসামি করা হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন