বৃহস্পতিবার বিকেলে কালিহাতীর বল্লা গ্রামে রাজার বাড়িতে গিয়ে জানা যায়, রাজা মিয়ার বাবা হারুন মিয়া বছর চারেক আগে এক সড়ক দুর্ঘটনায় মারা যান। এর তিন মাস পর এক গৃহপরিচারিকাকে ধর্ষণের অপরাধে স্থানীয় এলাকাবাসী রাজা মিয়াকে ওই গ্রাম থেকে তাড়িয়ে দেন।

default-image

রাজা মিয়ার চাচা মহিউদ্দিন বলেন, ‘এলাকায় চুরি-ছিনতাইসহ হেন কোনো অপরাধ নেই যে সে করেনি। বছর দশেক আগে একটি মুঠোফোন চুরির অপরাধে স্থানীয় সালিস বৈঠকে তাকে পেটানো হয়। সর্বশেষ নারীসংক্রান্ত ঘটনায় রাজাকে তার মাসহ এলাকা থেকে তাড়িয়ে দেওয়া হয়।’

বল্লা ইউনিয়ন পরিষদের ২ নম্বর ওয়ার্ডের সাবেক সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মিজানুর রহমান মুঠোফোনে প্রথম আলোকে বলেন, রাজা এলাকায় ছোটখাটো অপরাধ করে পালিয়ে যেত। কয়েক মাস পর আবার এলাকায় আসত। সর্বশেষ ধর্ষণের ঘটনায় এলাকাবাসী অতিষ্ঠ হয়ে তাকে এলাকা থেকে তাড়িয়ে দেন।

ঈগল এক্সপ্রেসের মালিক সোলায়মান হক জানিয়েছেন, ডাকাত দল বাসটি নিয়ন্ত্রণে নেওয়ার পর এই রাজা মিয়াই বাসটি চালাচ্ছিলেন বলে তিনি জেনেছেন।

ঈগল এক্সপ্রেসের বাসটি গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় কুষ্টিয়ার দৌলতপুর থেকে নারায়ণগঞ্জের উদ্দেশে যাত্রা শুরু করে। গভীর রাতে বঙ্গবন্ধু সেতু পার হওয়ার পর যাত্রীবেশী ডাকাত দল অস্ত্রের মুখে বাসের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে যাত্রীদের হাত, চোখ, মুখ বেঁধে ফেলে। যাত্রীদের মুঠোফোন, টাকাসহ মূল্যবান জিনিসপত্র লুট করে। এ সময় এক নারী যাত্রীকে দলবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনা ঘটে। তিন ঘণ্টা বাসটি নিয়ন্ত্রণে রাখার পর মধুপুরে রাস্তার পাশে খাদে পড়ে গেলে ডাকাতেরা পালিয়ে যান। খাদে পড়ে যাওয়ার পর আশপাশের লোকজন উদ্ধারে এগিয়ে আসেন। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে যাত্রীদের উদ্ধার করেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন