বুধবার দুপুরে আইনশৃঙ্খলা বিঘ্নকারী অপরাধ (দ্রুত বিচার) আদালতে মামলাটি করেন ভুক্তভোগী অভিভাবক সদস্য মো. মহিউদ্দিন খান।

বাদীপক্ষের আইনজীবী নজরুল ইসলাম বলেন, আইনশৃঙ্খলা বিঘ্নকারী অপরাধ (দ্রুত বিচার) আদালতের বিচারক জেলার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট গোলাম সরোয়ার মামলাটি গ্রহণ করে অভিযোগ তদন্তের জন্য পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন। এ ছাড়া বিচারক দ্রুত মামলার তদন্তের প্রতিবেদন আদালতে জমা দেওয়ার নির্দেশ দেন।

মামলার উল্লেখযোগ্য আসামিরা হলেন জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রাজেদুল ইসলাম, হরিরামপুর উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. লুৎফর রহমান, সাধারণ সম্পাদক কামরুল হাসান ওরফে ফিরোজ, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আজিম খান, উপজেলা আওয়ামী লীগের বহিষ্কৃত সহসভাপতি সেলিম মোল্লা ও যুবলীগের নেতা ফরিদ মোল্লা। আসামিরা মানিকগঞ্জ-২ (হরিরামপুর-সিঙ্গাইর) আসনের সংসদ সদস্য মমতাজ বেগমের অনুসারী।

মামলার আরজি সূত্রে জানা গেছে, গত রোববার বিদ্যালয়টির ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি পদে নির্বাচনের দিন নির্ধারণ করা হয়। নির্বাচনে সংসদ সদস্য মমতাজ বেগম এবং উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান দেওয়ান সাইদুর রহমান অংশ নেন। মামলার বাদী মহিউদ্দিন খান ও সাক্ষী (স্থানীয় গোপীনাথপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক) মিজানুর রহমান অভিভাবক সদস্য ও ভোটার। তাঁরা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সাইদুর রহমানের সমর্থক। নির্বাচনে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বিপুল ভোটে বিজয়ী এবং সংসদ সদস্য পরাজিত হবেন বলে ভোটারদের মধ্যে আলোচনা হতে থাকে।

মামলার আরজিত আরও বলা হয়েছে, নির্বাচন উপলক্ষে জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও পুলিশ রোববার ওই বিদ্যালয়ে উপস্থিত ছিল। ওই দুই ভোটার নির্বাচন শুরু হওয়ার আগে ভোট দিতে বিদ্যালয় কেন্দ্রে উপস্থিত হন। নির্বাচনে ভরাডুবি নিশ্চিত বুঝে ভোট গ্রহণ শুরুর আগে সংসদ সদস্য মমতাজ বেগমের সমর্থক ছাত্রলীগ ও যুবলীগের নেতা-কর্মীরা কেন্দ্রে প্রবেশ করে ওই দুই ভোটারকে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও পুলিশের সামনে মারধর করেন। পরে নির্বাচনী ব্যালট পেপার ছিনতাই ও আইনশৃঙ্খলা অবনতির কারণে প্রিসাইডিং কর্মকর্তা নির্বাচন স্থগিত ঘোষণা করেন।

এ ব্যাপারে পিবিআই মানিকগঞ্জ কার্যালয়ের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এম কে এইচ জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, আদালতের নির্দেশনার কাগজ তাঁর হাতে এখনো পৌঁছায়নি। পেলে নির্দেশনা মোতাবেক আইনানুগ পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন