এর আগে চলতি বছরের ২০ সেপ্টেম্বর হাসপাতালে রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের এক কর্মচারীর মৃত্যু হয়।

হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শামীম ইয়াজদানী প্রথম আলোকে বলেন, এক দিন আগেই হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন আমেনা। তিনি ডেঙ্গু পজিটিভ ছিলেন। শারীরিক অবস্থা ভালো না থাকায় তাঁকে বাঁচানো সম্ভব হয়নি।

শামীম ইয়াজদানী আরও বলেন, ১৪ সেপ্টেম্বর থেকে হাসপাতালে ডেঙ্গু রোগী ভর্তি হতে শুরু করেন। এ পর্যন্ত ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ৩৩১ জন। তাঁদের মধ্যে ২৮২ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। এখনো চিকিৎসাধীন আছেন ৪৭ জন। ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ১০ জন। ছাড়পত্রও পেয়েছেন ১০ জন। চিকিৎসাধীন ৪৭ রোগীর মধ্যে ১৪ জন রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের শ্রমিক।