ধর্মঘটের কারণ হিসেবে মহাসড়কে অবৈধ যান চলাচল বন্ধসহ কয়েকটি দাবির কথা উল্লেখ করেছে রংপুরের বাসমালিকদের সংগঠনটি। তবে বিএনপির নেতা-কর্মীদের ভাষ্য, গণসমাবেশ বানচাল করতেই এই ‘অপকৌশল’ নেওয়া হয়েছে। রংপুরে বিএনপির বিভাগীয় সমাবেশ আগামীকাল হওয়ার কথা।

রংপুরের বাসমালিকদের ডাকা ধর্মঘটকে ‘অজুহাত’ দেখিয়ে নীলফামারীতে আজ সকাল থেকে সব রুটের বাস চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। তবে কার, মাইক্রোবাস, ট্রাকসহ অন্যান্য পরিবহন চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে।

মাইক্রোবাসমালিক ও চালক মো. জাভেদ আলী বলেন, নীলফামারীতে কার ও মাইক্রোবাসের চলাচল স্বাভাবিক আছে। তবে রংপুরে কার গেলেও ভাঙচুরের ভয়ে মাইক্রোবাস নিয়ে যেতে সাহস পাচ্ছেন না চালকেরা।

জেলা বাস–মিনিবাস মালিক গ্রুপের সভাপতি মো. শাহজাহান আলী চৌধুরী বলেন, ‘আমরা নীলফামারী থেকে কোনো ধর্মঘটের ডাক দিইনি। সড়কে অবৈধ নছিমন, করিমন, ভটভটি ও ইজিবাইক চলাচল বন্ধের দাবিতে রংপুর বাস মালিক সমিতি এ ধর্মঘটের ডাক দিয়েছে। তারা আমাদের বাস বন্ধ রাখার আহ্বান জানায়। আজ যাত্রীও কম থাকে, এ কারণে আমরা বাস চালানো বন্ধ রেখেছি।’ তবে ট্রাক, লরি, কার ও মাইক্রোবাস চলাচল স্বাভাবিক আছে বলে জানান তিনি।