কক্ষের ভেতর থেকে দরজা বন্ধ ছিল। আজ সকালে পুলিশ ও পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) পৃথক দল ঘটনাস্থলে পৌঁছে দরজা ভেঙে লাশটি উদ্ধার করে। সুরতহাল প্রতিবেদন সম্পন্নের পর লাশ ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

পুলিশ জানিয়েছে, গতকাল সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে ওই তরুণী হোটেলটির ৩০৪ নম্বর কক্ষ ভাড়া নেন। রেজিস্ট্রারে তরুণীর নাম লেখা হয় নুসরাত জাহান লিজা (২৩)। ঠিকানার জায়গায় লেখা হয় টেকনাফের হ্নীলা। পিতার নাম লেখা হয় জিসান মিয়া ও মায়ের নাম রোজিনা আকতার। পেশা অথবা হোটেলে অবস্থানের কারণ লিপিবদ্ধ ছিল না।

উখিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) বিপুল চন্দ্র দে প্রথম আলোকে বলেন, হোটেলের রেজিস্ট্রারে নিহত তরুণীর একটি মুঠোফোন নম্বর লিপিবদ্ধ থাকলেও ঘটনার পর সেটি বন্ধ পাওয়া যাচ্ছে। তরুণী একাই কক্ষটি ভাড়া নিয়েছিলেন। তরুণীর স্বজনের খোঁজও মিলছে না।

উখিয়া থানার ওসি শেখ মোহাম্মদ আলী বলেন, হোটেলে রেজিস্ট্রারে লিপিবিদ্ধ ঠিকানা অনুযায়ী তরুণীর পরিচয় শনাক্তের চেষ্টা চলছে। বেলা দেড়টা পর্যন্ত সঠিক পরিচয় মেলেনি। কী কারণে তরুণী আত্মহত্যা করেছেন কিংবা এর পেছনে অন্য কোনো কারণ আছে কি না, সেটির অনুসন্ধান চলছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন