আব্দুল আহাদ মামলার মূল আসামি মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগর উপজেলার ষোলঘর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান আজিজুল ইসলামের ছেলে।

আদালতের নথি সূত্রে জানা গেছে, গত শনিবার সকালে নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ উপজেলার টিপুরদী এলাকায় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে তল্লাশিচৌকিতে দুটি কনটেইনার থেকে ৩৬ হাজার ৮১৬ বোতল বিদেশি মদ উদ্ধার করে র‍্যাব-১১–এর একটি দল। এ মদের আনুমানিক মূল্য প্রায় ৪৭ কোটি টাকা। এ ঘটনায় র‍্যাব-১১–এর উপপরিচালক মো. শাহাদাৎ হোসেন বাদী হয়ে সোনারগাঁ থানায় মামলা করেন।

এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে শনিবার ও রোববার ঢাকা ও নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ এলাকা থেকে তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। তাঁরা হলেন আব্দুল আহাদ, মো. নাজমুল হোসেন ও সাইফুল ইসলাম।

নারায়ণগঞ্জ আদালত পুলিশের পরিদর্শক আসাদুজ্জামান প্রথম আলোকে বলেন, মদ চোরাচালানের ঘটনায় ১৯৭৪ সালের বিশেষ ক্ষমতা আইন ও পেনাল কোডে ৪২৫–এর ৪ ধারায় র‍্যাব বাদী হয়ে ১১ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেছে। ওই মামলায় তিন আসামির ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন জানালে শুনানি শেষে আদালত দুই আসামির তিন দিন করে এবং একজনের দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

পুলিশ বলছে, মামলার প্রধান আসামি ইউপি চেয়ারম্যান আজিজুল ইসলাম ভুয়া কাগজপত্র তৈরি করে বিদেশি মদ আনান। এ ঘটনাঢ র‍্যাব তাঁর ওয়ারীর বাসায় তল্লাশি চালিয়ে নগদ ৯৮ লাখ ২৯ হাজার ৫০০ টাকা, ৪ হাজার ২৫৫ ইউরো, ৭ হাজার ৪৪৪ থাই বাথ, ২০ হাজার ১৪৫ ভারতীয় রুপিসহ চীন, মালয়েশিয়া ও সিঙ্গাপুরের মুদ্রা উদ্ধার করেছে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সোনারগাঁ থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, মামলার বাকি আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন