বিক্ষোভ কর্মসূচিতে শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজের ৩১তম ব্যাচ ও বেসরকারি টিএমএসএস মেডিকেল কলেজের ১৪তম ব্যাচের শিক্ষার্থীরা অংশ নেন। এ সময় ‘ক্যারি অন’ পদ্ধতি বহালের দাবিতে শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন স্লোগান দেন ও প্ল্যাকার্ড প্রদর্শন করেন। তাঁরা প্রায় ১৫ মিনিট ঢাকা-রংপুর মহাসড়ক অবরোধ করে রাখেন। অবরোধ শেষে শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বহির্বিভাগের সামনে ফিরিঙ্গি মোড়ে সমাবেশ করেন শিক্ষার্থীরা। সেখানে তাঁরা দুই দফা দাবি তুলে ধরেন।

সমাবেশে শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজের ৩১তম ব্যাচের শিক্ষার্থী মোহাম্মদ হিমেল, নাহিয়ান ইসলাম, টিএমএসএস মেডিকেল কলেজের ১৪তম ব্যাচের শিক্ষার্থী সুরাগ সমুদ্র বক্তব্য দেন।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, মেডিকেল কলেজের শিক্ষার্থীরা ‘ক্যারি অন’ পদ্ধতিতে কোনো বর্ষে এক বা একাধিক বিষয়ে অকৃতকার্য হলেও পরবর্তী বর্ষে একই ব্যাচে পড়ার সুযোগ পেতেন। অকৃতকার্য বিষয়ে পরবর্তী বর্ষে আবার পরীক্ষা দিতে পারতেন। শিক্ষার্থীদের ফলাফলে মেধার কোনো বিভাজনও করা হতো না। অথচ সিজিপিএ বা গ্রেডিং পদ্ধতিতে কোনো বিষয়ে অকৃতকার্য হলে পরবর্তী ব্যাচের শিক্ষার্থীদের সঙ্গে থেকে যেতে হয়। এতে শিক্ষাজীবন থেকে এক বছর কমে যাওয়া ছাড়াও সেশনজট তৈরি হবে।

বক্তারা আরও বলেন, গ্রেডিং পদ্ধতির কারণে পড়াশোনা শেষ করে চিকিৎসা পেশা শুরু করতেও দেরি হবে। একই সঙ্গে এ, বি ও সি গ্রেড করে ফলাফল ঘোষণা করায় চিকিৎসকদের মধ্যেও বিভেদ তৈরি হবে। এ জন্য তাঁরা গ্রেডিং পদ্ধতি বাতিল করে দ্রুত ‘ক্যারি অন’ পদ্ধতি বহাল রাখার দাবিতে আন্দোলন করছেন। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত তাঁরা আন্দোলন চালিয়ে যাবেন।

শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজের প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী সাবরিন সামান্তা বলেন, ২০২১-২২ সেশনে বিএমডিসি ‌‘ক্যারি অন’ পদ্ধতি বাতিল করে ‘সিজিপিএ’ পদ্ধতি চালু করে। এতে বিভিন্ন গ্রেডে মেডিকেল শিক্ষার্থীদের ফলাফল ঘোষণা করা হবে। এ পদ্ধতিতে কোনো বর্ষে একটি বিষয়ে অকৃতকার্য হলে অন্য বর্ষে উন্নীত হওয়ার সুযোগ নেই। যেটা ‘ক্যারি অন’ পদ্ধতিতে ছিল। মেডিকেল শিক্ষা এমনিতেই কঠিন। সেখানে ‘ক্যারি অন’ পদ্ধতি বাতিল হলে শিক্ষার্থীদের মধ্যে অকৃতকার্যের সংখ্যা বাড়বে। হতাশায় অনেক শিক্ষার্থী ঝরে যাবে। শিক্ষার্থীরা ব্যবহারিক শিক্ষার মাধ্যমে চিকিৎসাবিদ্যা আয়ত্ত করার পরিবর্তে বেশি সিজিপিএ অর্জনের প্রতিযোগিতায় নামবেন। এতে ভালো চিকিৎসকের বদলে বেশি সিজিপিএ পাওয়া চিকিৎসকের ছড়াছড়ি শুরু হবে।