ঘোষিত নতুন কমিটির ৯ জনের মধ্যে অন্যরা হলেন সভাপতি শিতাংশু শেখর ধর, সহসভাপতি গোলাম হায়দার চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক মো. হাসনাত হোসেন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. মাসুক মিয়া ও মিজানুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. ইকবাল হোসেন ও নিহার রঞ্জুর তালুকদার।

স্থানীয় নেতা-কর্মীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, বোরহান উদ্দিন সভাপতি ও মাসুদ মিয়া সাধারণ সম্পাদক পদপ্রত্যাশী ছিলেন। ব্যক্তিগত কারণ দেখিয়ে পদত্যাগ করলেও আসলে কমিটি ঘোষণার পর কাঙ্ক্ষিত পদ না পাওয়ার ক্ষোভ থেকেই তাঁরা পদত্যাগ করেছেন।

বোরহান উদ্দিন তাঁর পদত্যাগপত্রে উল্লেখ করেছেন, তিনি বঙ্গবন্ধুর আদর্শে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য বাস্তবায়নে নিরলসভাবে কাজ করছেন। তিনি শান্তিগঞ্জ উপজেলা যুবলীগের সভাপতি। শিগগিরই যুবলীগের উপজেলা সম্মেলন করবেন এবং পরে তিনি আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে যুক্ত হবেন। তাই এখন তিনি কোনো পদ গ্রহণে আগ্রহী নন। মাসুদ মিয়া ব্যক্তিগত শারীরিক অসুস্থতার কথা উল্লেখ করেছেন পদত্যাগপত্রে।

গতকাল দুপুরে শান্তিগঞ্জ বাজারে উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য সাবেক শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। বিশেষ অতিথি ছিলেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য আজিজুস সামাদ, সুনামগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য মহিবুর রহমান, সুনামগঞ্জ ও সিলেট সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য শামীমা আক্তার খানম। সম্মেলনের উদ্বোধক ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সাবেক সংসদ সদস্য মতিউর রহমান। প্রধান বক্তা ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এম এনামুল কবির ইমন।