গত বুধবার বিকেলে রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির সমাবেশ চলাকালে সেখানকার রাস্তায় অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি ও একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য এ এইচ এম শামসুদ্দিন চৌধুরীর ওপর হামলার ঘটনা ঘটে। তাঁকে বহনকারী গাড়ি ভাঙচুর, তাঁর দেহরক্ষী ও তাঁকে মারধর করা হয়। এ ঘটনায় গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে তাঁর দেহরক্ষী কনস্টেবল রফিকুল ইসলাম বাদী হয়ে পল্টন থানায় একটি মামলা করেন। মামলায় ৪০ থেকে ৫০ জনকে আসামি করা হয়েছে।

মানিকগঞ্জ প্রেসক্লাব প্রাঙ্গণে কর্মসূচিতে একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির জেলা শাখার সভাপতি দীপক কুমারে ঘোষের সভাপতিত্বে বক্তব্য দেন মানিকগঞ্জ পৌরসভার সাবেক মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা গাজী কামরুল হুদা, জাসদের জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক আসলাম খান, ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সাধারণ সম্পাদক শাখাওয়াত হোসাইন খান, জেলা শিক্ষক সমিতির সভাপতি কাশিনাথ সরকার, উদীচী শিল্পীগোষ্ঠীর জেলা সংসদের সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান প্রমুখ।

দীপক কুমার ঘোষ বলেন, জঙ্গিবাদ, মৌলবাদের বিরুদ্ধে অবস্থান নেওয়ায় বিএনপির নেতা-কর্মীরা বিচারপতি (অব.) শামসুদ্দিন চৌধুরীর ওপর হামলা চালিয়েছে। এ হামলার ঘটনায় মামলা হয়েছে। দ্রুত সময়ের মধ্যে আসামিদের গ্রেপ্তার ও তাঁদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা করতে হবে। অন্যথায় এই সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠী দেশে অরাজক পরিস্থিতির সৃষ্টি করবে।