সুইজারল্যান্ডভিত্তিক বায়ুর মান পর্যবেক্ষণকারী প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান আইকিউ এয়ার দূষিত বাতাসের শহরের এ তালিকা প্রকাশ করে। প্রতিদিনের বাতাসের মান নিয়ে তৈরি করা একিউআই স্কোর একটি নির্দিষ্ট শহরের বাতাস কতটুকু নির্মল বা দূষিত, সে সম্পর্কে মানুষকে তথ্য দেয় এবং তাদের কোনো ধরনের স্বাস্থ্যঝুঁকি তৈরি হতে পারে কি না, তা জানায়।

একিউআই স্কোরে আজ দ্বিতীয় স্থানে আছে উজবেকিস্তানের তাসখন্দ (২৮৮)। তৃতীয় স্থানে আছে মঙ্গোলিয়ার উলানবাটোর (২৪০)। দূষিত শহরের তালিকায় চতুর্থ স্থানে আছে ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লি (২১৮)। এরপরই আছে দেশটির বাণিজ্যিক রাজধানী মুম্বাই (২০০)। ষষ্ঠ স্থানে আছে মিয়ানমারের ইয়াঙ্গুন (১৮৩) ও সপ্তম স্থানে আছে পাকিস্তানের লাহোর (১৭৯)।

একিউআই স্কোর ১০০ থেকে ২০০ পর্যন্ত ‘অস্বাস্থ্যকর’ হিসেবে বিবেচিত হয়। একইভাবে একিউআই স্কোর ২০১ থেকে ৩০০ হলে স্বাস্থ্যসতর্কতাসহ জরুরি অবস্থা হিসেবে বিবেচিত হয়। এ অবস্থায় শিশু, প্রবীণ ও অসুস্থ মানুষকে বাড়ির ভেতরে এবং অন্যদের বাড়ির বাইরের কার্যক্রম সীমাবদ্ধ রাখার পরামর্শ দেওয়া হয়। এ পরিমাণে বায়ুদূষণ গুরুতর স্বাস্থ্যঝুঁকি তৈরি করে।