আব্দুল মোমেন বলেন, সুতরাং বিদেশি কূটনীতিকেরা যে দেশে দায়িত্ব পালন করেন, সে দেশের রীতি–নিয়ম–আইন অনুসারে তাঁরা দায়িত্ব পালন করবেন।

আব্দুল মোমেন আরও বলেন, ‘দুঃখের বিষয়, আমাদের দেশের বিভিন্ন লোকজন দেশের অভ্যন্তরীণ নানা বিষয়ে বিদেশিদের মতামত চান। যদিও উনারা (কূটনীতিক) আমাদের অতিথি, দেশ সম্পর্কে, ইতিহাস প্রসঙ্গে বাংলাদেশিদের চেয়ে তাঁদের কম জ্ঞান আছে। এই সংস্কৃতির (মতামত চাওয়া) পরিবর্তন হওয়া দরকার। তবুও উনারা (দেশের লোকজন) তাঁদের (কূটনীতিক) কাছে যান।’

পররাষ্ট্রমন্ত্রী আব্দুল মোমেন বলেন, ‘এটা খুবই দুঃখজনক। এই সংস্কৃতির পরিবর্তন হওয়া উচিত। আজ হোক, কাল হোক, আমাদের অবশ্যই এই সংস্কৃতি বন্ধ করতে হবে।’

গণমাধ্যমের ভূমিকার সমালোচনা করে আব্দুল মোমেন বলেন, ‘আপনারা (সাংবাদিক) তাঁদের (কূটনীতিক) জোর করেন। তখন তাঁরা (কূটনীতিক) বলতে বাধ্য হন। আমাকে একজন কূটনীতিক বলেছেন, তাঁকে তাঁরা (সাংবাদিক) ওই সব প্রশ্ন করেছেন। আর তিনি তা বলেছেন, যা তিনি জানেন না।’