জানতে চাইলে অধিদপ্তরের আবহাওয়াবিদ বজলুর রশীদ প্রথম আলোকে বলেন, দেশের ওপর মৌসুমি বায়ু এক সপ্তাহ ধরে নিষ্ক্রিয় অবস্থায় ছিল। এ কারণে আকাশে মেঘ ও বৃষ্টি কম ছিল। রোববার থেকে মৌসুমি বায়ু সক্রিয় হয়ে উঠেছে। ফলে বৃষ্টি বাড়ছে। কয়েক দিনের মধ্যে বৃষ্টি ধারাবাহিকভাবে বেড়ে তাপমাত্রা কমে আসতে পারে।

আবহাওয়া অধিদপ্তর বলছে, গতকাল রাজধানীতে সর্বোচ্চ ও সর্বনিম্ন তাপমাত্রার পার্থক্য ছিল প্রায় ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। ঢাকা, চট্টগ্রাম, খুলনা, বরিশালসহ দেশের বেশির ভাগ এলাকায় সর্বনিম্ন ও সর্বোচ্চ তাপমাত্রার পার্থক্য প্রায় একই রকম ছিল। এ কারণে দিন ও রাতের গরমের অনুভূতি প্রায় একই ছিল। আগামী কয়েক দিনে সামগ্রিকভাবে দেশের তাপমাত্রা কমলেও দিন ও রাতের তাপমাত্রার পার্থক্য খুব বেশি কমবে না। ফলে গরম কিছুটা কমলেও অস্বস্তিকর আবহাওয়া রয়েই যাচ্ছে।

আবহাওয়া অধিদপ্তর বলছে, মাসের বাকি সময় থেমে থেমে বৃষ্টি হলেও গরমের অনুভূতি খুব বেশি কমবে না। সাধারণত জুলাইয়ে দেশের বেশির ভাগ এলাকার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৩ থেকে ৩৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে থাকে। এক সপ্তাহ ধরে তা ৩৫ থেকে ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে ছিল। ফলে ভরা বর্ষা মৌসুমে দাবদাহের গরম অনুভূত হয়েছে।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের পূর্বাভাস বলছে, রংপুর, রাজশাহীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানের ওপর দিয়ে যে তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছিল, আগামীকাল মঙ্গলবার থেকে তা প্রশমিত হতে পারে। দেশের বিভিন্ন স্থানে বৃষ্টি বাড়তে পারে।

সরকারের বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্রের পূর্বাভাস বলছে, মঙ্গলবার থেকে বাংলাদেশের উজানে ভারতের আসাম, মেঘালয় ও পশ্চিমবঙ্গের কয়েকটি স্থানে মাঝারি থেকে ভারী বৃষ্টি শুরু হতে পারে।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন