বুধবার চাক্তাই শিল্প ও ব্যবসায়ী সমিতির সঙ্গে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় মো. রেজাউল করিম চৌধুরী এসব কথা বলেন। চাক্তাইয়ে সমিতির কার্যালয়ে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

পূর্ণিমার প্রভাবে সৃষ্ট জোয়ারের কারণে ১৩ থেকে ১৭ জুলাই চট্টগ্রাম নগরের চাক্তাই, খাতুনগঞ্জসহ বিভিন্ন এলাকায় টানা ৪ থেকে ৬ ঘণ্টার জলাবদ্ধতা হয়। জোয়ারে এসব এলাকার রাস্তাঘাট, দোকানপাট ও ঘরবাড়িতে পানি ঢুকে যায়। দীর্ঘক্ষণ পানি জমে থাকায় ব্যবসা-বাণিজ্যের কার্যক্রম স্থবির হয়ে পড়ে। এই অঞ্চলের ব্যবসায়ী ও বাসিন্দারা অন্তত ২০ বছর ধরে এ সমস্যায় ভুগছেন। চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন ও চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ এ সমস্যা সমাধানের আশ্বাস দিলেও তা কার্যকর হয়নি।

চাক্তাই-খাতুনগঞ্জের জোয়ারজনিত জলজট নিরসনে সেবা সংস্থাগুলোর সমন্বয়ে দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা নেওয়া হবে বলে ব্যবসায়ীদের আশ্বস্ত করেন মেয়র। তিনি বলেন, সচেতনতার অভাবে খাল-নালায় বর্জ্য ও পলিথিন ফেলা হচ্ছে। এতে পানি চলাচলে প্রতিবন্ধকতা তৈরি হচ্ছে। চাক্তাই খালসহ কর্ণফুলী নদীর নাব্যতা কমে গেছে। পরিচ্ছন্নতাকর্মীরা খাল ও নালা পরিষ্কার করলেও তা কিছুদিনের মধ্যে ভরাট হয়ে যায়।
সমিতির সভাপতি এস এম হারুনুর রশিদের সভাপতিত্বে বক্তব্য দেন এনামুল হক, ওমর আযম, ফরিদ উদ্দীন আহমেদ, ফয়েজ উল্লাহ, মীর আহমদ প্রমুখ।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন