default-image

ইস্পাত পণ্য উৎপাদনে বড় বিনিয়োগ করেছে চট্টগ্রামের মোস্তফা হাকিম গ্রুপ। স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীর বছরে কর্ণফুলী নদীর তীরে তাদের গড়ে তোলা নতুন কারখানা ‘এইচ এম স্টিল অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি লিমিটেড’–এ পরীক্ষামূলকভাবে উৎপাদন শুরু হয়েছে।

চট্টগ্রামের কর্ণফুলী উপজেলার ডাঙ্গারচর গ্রামে প্রতিষ্ঠিত এই কারখানার উৎপাদন কার্যক্রমের উদ্বোধন হয় গতকাল শনিবার। এটির উদ্বোধন করেন ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী। এ সময় এইচ এম স্টিলের চেয়ারম্যান ও চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র এম মনজুর আলম উপস্থিত ছিলেন।

বিজ্ঞাপন

উদ্যোক্তারা জানান, এইচ এম স্টিল অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি লিমিটেডে প্রায় এক হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগ হয়েছে। এতে অর্থায়ন করেছে ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংক (ইউসিবি)। প্রায় দুই বছর ধরে কারখানাটি নির্মাণ করা হয়। এতে পুরোনো লোহার টুকরা থেকে প্রথমে বিলেট, এরপর বিলেট থেকে ইস্পাত পণ্য উৎপাদিত হবে। কারখানাটির বছরে রড, অ্যাঙ্গেল, চ্যানেলসহ নানা ইস্পাত পণ্য উৎপাদনের ক্ষমতা প্রায় চার লাখ টন। এই কারখানায় কর্মসংস্থান হচ্ছে প্রায় দেড় হাজার মানুষের।

মোস্তফা হাকিম গ্রুপ রড উৎপাদনে যুক্ত হয় ১৯৮৪ সালে। প্রথমে গোল্ডেন আয়রন নামের কারখানায় সনাতন পদ্ধতিতে রড উৎপাদন করে গ্রুপটি। এরপর ১৯৮৭ সালে গ্রুপটি আধা স্বয়ংক্রিয় কারখানা ‘গোল্ডেন ওয়ার্কস’ চালু করে। এরপর সিমেন্ট, আবাসন, এলপিজিসহ বহু খাতে বিনিয়োগ করেছে গ্রুপটি। তবে গত তিন বছরে গ্রুপটি ইস্পাত খাতে বড় বিনিয়োগ করে। ২০১৭ সালে প্রায় ৬০০ কোটি টাকা বিনিয়োগে ‘গোল্ডেন ইস্পাত’ নামে স্বয়ংক্রিয় কারখানা চালু করে কোম্পানিটি। তিন বছরের মাথায় এইচ এম স্টিল নামে নতুন কারখানা চালু করল গ্রুপটি। দুই কারখানা মিলে গ্রুপটির বার্ষিক ইস্পাত পণ্য উৎপাদনের ক্ষমতা দাঁড়াল ছয় লাখ টনে।

গতকাল এইচ এম স্টিলের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী বলেন, নতুন এই কারখানা দেশের প্রবৃদ্ধিতে অবদান রাখবে। গুণগত মান অক্ষুণ্ন রেখে দেশের অবকাঠামো উন্নয়নে ভূমিকা পালন করবে। শিল্পকারখানার মাধ্যমে এই এলাকা আলোকিত হবে। তিনি আরও বলেন, এই এলাকার সড়কব্যবস্থার উন্নয়নে পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে। তবে সড়কপথের চেয়ে কারখানার কাঁচামাল এবং প্রস্তুত পণ্য আনা–নেওয়ার জন্য নদীপথ ব্যবহারের ওপর গুরুত্ব দেন তিনি।

কারখানাটির উদ্যোক্তা চট্টগ্রামের সাবেক মেয়র এম মনজুর আলম বলেন, ইস্পাত পণ্য উৎপাদনে মোস্তফা হাকিম গ্রুপের চার দশকের অভিজ্ঞতা রয়েছে। ইস্পাত পণ্য উৎপাদনে এইচ এম স্টিল এই গ্রুপের চতুর্থ প্রতিষ্ঠান। এর মধ্যে গোল্ডেন ইস্পাত ও এইচ এম স্টিল থেকে সরকারি কোষাগারে বছরে প্রায় ৪০০ কোটি টাকা জমা হবে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

অনুষ্ঠানে মোস্তফা হাকিম গ্রুপের পরিচালক ও সীতাকুণ্ডের সাংসদ মোহাম্মদ দিদারুল আলম, ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মোহাম্মদ শওকত জামিল, এইচ এম স্টিলের এমডি নিজামুল আলম, পরিচালক মোহাম্মদ সরোয়ার আলম, মোহাম্মদ ফারুক আজম, মোহাম্মদ সাইফুল আলম ও মোহাম্মদ সাহিদুর আলম উপস্থিত ছিলেন।

বিজ্ঞাপন
শিল্প থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন