গাজীপুরের ভোগড়ায় ৫৫ হাজার বর্গফুট আয়তনের কারাখানায় গত অক্টোবরে শাওমির স্মার্টফোন সংযোজন শুরু হয়। চীনা এই ব্র্যান্ডটির জন্য স্মার্টফোন সংযোজন করছে তাদেরই সহযোগী প্রতিষ্ঠান ডিবিজি টেকনোলজি বিডি লিমিটেড। কারখানাটিতে বছরে ৩০ লাখ স্মার্টফোন উৎপাদন করবে শাওমি বাংলাদেশ।

শাওমি বাংলাদেশের কান্ট্রি ম্যানেজার জিয়াউদ্দিন চৌধুরী বলেন, ‘আমরা যখন থেকে বাংলাদেশে কাজ শুরু করি, আমাদের লক্ষ্য ছিল প্রিমিয়ার স্টাইল, আধুনিক প্রযুক্তি ও উন্নত মানের ডিভাইস সরবরাহ করা। বাংলাদেশের প্রবৃদ্ধির প্রতিশ্রুতিবদ্ধ শাওমি এখন এসব ডিভাইস স্থানীয়ভাবেই উৎপাদন শুরু করেছে। এটা ডিজিটাল বাংলাদেশের জন্য একটা মাইলফলক।

অক্টোবরের তৃতীয় সপ্তাহে কারখানার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে শাওমি জানায়, ভারত, চীন ও ভিয়েতনামে উৎপাদিত স্মার্টফোনের মতোই একই মানসম্পন্ন স্মার্টফোন বাংলাদেশের কারখানাতেও তৈরি হবে। এ জন্য ধাপে ধাপে ১ কোটি মার্কিন ডলার বা ৮৫ কোটি টাকা বিনিয়োগের পরিকল্পনা রয়েছে। ১ হাজারের বেশি কর্মসংস্থান হবে, যদিও বর্তমানে কাজ করছেন ২৬০ জন কর্মী।