সিঙ্গারের প্রতিবেদন অনুযায়ী, গত জানুয়ারি থেকে জুন (অর্ধবার্ষিক) সময়কালে কোম্পানিটি তাদের নানা পণ্য বিক্রি করে প্রায় ৯২৫ কোটি টাকা আয় করেছে। ২০২১ সালের প্রথমার্ধে তথা একই সময়ে এই আয়ের পরিমাণ ছিল ৮৬৪ কোটি ৪৮ লাখ টাকা। সেই হিসাবে গত বছরের তুলনায় কোম্পানিটির বিক্রি বেড়েছে সাড়ে ৬০ কোটি ৫২ লাখ টাকা বা ৭ শতাংশের মতো। আর চলতি বছরের প্রথমার্ধে পণ্য তৈরি ও বিক্রি বাবদ খরচের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৭২৪ কোটি ১৫ লাখ টাকা, যা গত বছরের একই সময়ে ছিল ৬৪৯ কোটি ৩০ লাখ টাকা। অর্থাৎ বছর না ঘুরতেই কোম্পানির খরচ বেড়েছে সাড়ে ১১ শতাংশের বেশি।

কোম্পানি সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা জানান, চলতি বছরের প্রথমার্ধে সিঙ্গারের বিক্রির লক্ষ্যমাত্রা ছিল এক হাজার কোটি টাকা। কিন্তু জুন শেষে লক্ষ্যমাত্রার তুলনায় ৭৫ কোটি টাকা বা ৮ শতাংশ কম বিক্রি হয়েছে। বন্যা ও মূল্যস্ফীতির কারণেই মূলত বিক্রির কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্য অর্জন বাধাগ্রস্ত হয়েছে।

জানতে চাইলে সিঙ্গার বাংলাদেশের অর্থবিষয়ক পরিচালক ও প্রধান অর্থ কর্মকর্তা (সিএফও) আকরাম উদ্দিন আহমদ প্রথম আলোকে বলেন, ‘কাঁচামাল ও জাহাজভাড়া বৃদ্ধি এবং ডলারের বিপরীতে টাকার অবমূল্যায়নের ফলে আগের বছরের চেয়ে আমাদের পণ্য উৎপাদন ও বিপণন খরচ ১৪ শতাংশ বেড়েছে। খরচের এই চাপ সামাল দিতে আমরা পণ্যমূল্য ৯ শতাংশের মতো বাড়িয়েছি। তারপরও মুনাফা আগের বছরের তুলনায় অর্ধেকের বেশি কমেছে। কারণ, কাঙ্ক্ষিত মাত্রায় বিক্রি না হওয়ায় চলতি বছরের প্রথমার্ধে বেশি ঋণ করতে হয়েছে। এ জন্য ঋণের সুদ বাবদ খরচও বেড়েছে অনেক। সব মিলিয়ে বৈশ্বিক ও অভ্যন্তরীণ অর্থনীতির চাপ এসে পড়েছে ব্যবসায়ের ওপর।’

আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী গত জুন শেষে কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় বা ইপিএস কমে হয়েছে ২ টাকা ৩১ পয়সা। আগের বছরের একই সময়ে যার পরিমাণ ছিল ৪ টাকা ৬৯ পয়সা। কোম্পানির সব ধরনের খরচ ও কর পরিশোধের পর যে মুনাফা থাকে, তার ভিত্তিতেই ইপিএস হিসাব করা হয়। সেই হিসাবে দেখা যায়, সব খরচ বাদ দেওয়ার পর কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি মুনাফা অর্ধেকের বেশি কমে গেছে।

বাজারসংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা বলছেন, শেয়ারবাজারের তালিকাভুক্ত উৎপাদন খাতের বেশির ভাগ কোম্পানির ওপরই চলমান বৈশ্বিক ও স্থানীয় অর্থনৈতিক অস্থিরতার প্রভাব পড়বে। এ অবস্থা দীর্ঘায়িত হলে অনেক কোম্পানির মুনাফা ও আয় কমে যাবে। তাতে কোম্পানির শেয়ারের দামে নেতিবাচক প্রভাব পড়বে, যার ধাক্কা এসে লাগবে পুরো বাজারে।

এদিকে মুনাফা কমে যাওয়ার খবরে গতকাল বুধবার সিঙ্গার বাংলাদেশের শেয়ারের দাম কমেছে। এদিন ঢাকার বাজারে কোম্পানিটির শেয়ারের দাম প্রায় পৌনে ২ শতাংশ বা ২ টাকা ৮০ পয়সা কমে ১৫৪ টাকায় নেমে এসেছে। এর আগের তিন কার্যদিবসেও অবশ্য কমেছে। এ নিয়ে গত চার কার্যদিবসে কোম্পানিটির শেয়ারের দাম প্রায় আট টাকা কমেছে।

শেয়ারবাজার থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন