বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ সরকারি কর্মকমিশন (পিএসসি) এখন এটি নিয়ে কাজ শুরু করেছে। জানতে চাইলে জনপ্রসাশন মন্ত্রণালয়ের একজন অতিরিক্ত সচিব প্রথম আলোকে বলেন, ‘কয়েক মাস পর্যালোচনার পর আমরা ৪৪তম বিসিএসের কার্যক্রম মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে শেষ করে পিএসসিতে পাঠিয়েছি। বিভিন্ন মন্ত্রণালয় থেকে চাহিদাপত্র নিয়ে কতজনকে কোথায় নেওয়া হবে, তা ঠিক করা হয়েছে। এখন নিয়োগের কার্যক্রম শুরুর জন্য পিএসসিকে বলা হয়েছে।’

পিএসসির একজন সদস্য প্রথম আলোকে বলেন, ‘৩০ নভেম্বর পিএসসিতে একটি বিশেষ সভা ডাকা হয়েছে। সেখানেই ৪৪তম বিসিএসের বিষয়ে আলোচনা হতে পারে। দ্রুত সময়ের মধ্যেই এই বিসিএসের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করার প্রস্তুতি আছে পিএসসির। সেভাবেই ভেবে রেখেছি। এই মাসের মধ্যেই আমাদের বিজ্ঞপ্তি দেওয়ার পরিকল্পনা।’

এই করোনাকালে ৪২তম বিশেষ বিসিএসের কার্যক্রম হাতে নেয় সরকার। করোনা মোকাবিলার জন্য এই বিশেষ বিসিএস থেকে ৪ হাজার চিকিৎসক নিয়োগ দেওয়া হয়। এ ছাড়া ২৯ নভেম্বর ৪১তম বিসিএসের লিখিত পরীক্ষা শুরু হবে। এখানে প্রায় ২১ হাজার প্রার্থী অংশ নেবেন।

সর্বশেষ গত ২৯ অক্টোবর ৪৩তম বিসিএসের প্রিলিমিনারি অনুষ্ঠিত হয়। এতে চার লাখের বেশি প্রার্থী আবেদন করেছিলেন। এই পরীক্ষার ফল এখনো প্রকাশ করেনি পিএসসি।

নিয়োগ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন