চাকরির শর্ত

প্রার্থীদের শুধু চট্টগ্রামের ১১ জেলার ক্ষুদ্র জাতিগোষ্ঠীভুক্ত সুঠাম দেহের অধিকারী ও কঠোর পরিশ্রমী হতে হবে। এই ১১ জেলার যেসব প্রার্থী আগে আবেদন করেছেন, তাঁদের নতুন করে আবেদন করার প্রয়োজন নেই। বয়স ৩০ থেকে ৪৫ বছরের মধ্যে হতে হবে। নিয়মিত কৃষিকাজের সঙ্গে জড়িত, জৈব সার ব্যবহার করে চাষাবাদে সক্ষম, স্বল্পশিক্ষিত নারী আবেদন করতে পারবেন। আগে এলে আগে পাবেন ভিত্তিতে। পাসপোর্টের মেয়াদ ন্যূনতম ২০২৩ সালের ২০ অক্টোবর পর্যন্ত থাকতে হবে।

গুগল ডকস ফরমে তথ্য দাখিলকারী প্রার্থীদের মধ্য থেকে বাছাইকৃত যোগ্য প্রার্থীদের তালিকা প্রকাশ করা হবে। বাছাইকৃত প্রার্থীদের আগামী ১০ কর্মদিবসের মধ্যে যেসব কাগজ দাখিলের জন্য প্রস্তুত রাখতে হবে, সেগুলো হলো—জেলা প্রশাসক/ নিজ ক্ষুদ্র জাতিগোষ্ঠীপ্রধান কর্তৃক প্রদত্ত সনদ (ইংরেজিতে), উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কর্তৃক সংশ্লিষ্ট কাজে দুই বছরের অভিজ্ঞতার সনদ (ইংরেজিতে), নিজ জেলার সিভিল সার্জন কর্তৃক (সংযুক্ত) মেডিকেল সনদ, ঢাকায় বনানীর প্রেসক্রিপশন পয়েন্ট থেকে যক্ষ্মা পরীক্ষার সনদ, পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সনদ, মূল পাসপোর্ট ও পাসপোর্টের রঙিন ফটোকপি, মূল জাতীয় পরিচপত্র ও জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপি, করোনা সনদের কপি এবং পাসপোর্ট সাইজের তিন কপি রঙিন ছবি।

আবেদন যেভাবে

নির্ধারিত গুগল ডকসের এই লিংকে ইংরেজিতে ফরম পূরণের মাধ্যমে আবেদন করতে হবে।

সার্ভিস চার্জ
বোয়েসেলের সার্ভিস চার্জ বাবদ ১৫ হাজার টাকা, ভ্যাট, ট্যাক্স, ভিসা, স্মার্ট কার্ড, কল্যাণ তহবিল, বিমা, ডেটাবেজ রেজিস্ট্রেশন ও অন্যান্য ফি বাবদ ১৪ হাজার ৮৯০ টাকাসহ মোট ২৯ হাজার ৮৯০ টাকা প্রদান করতে হবে।

নির্বাচিত প্রার্থীদের জামানত বাবদ ৫০ হাজার টাকা (ফেরতযোগ্য) প্রদান করতে হবে। সংশ্লিষ্ট প্রার্থী ও অভিভাবক/সুপারিশকারীর কাছ থেকে ৩০০ টাকার নন–জুডিশিয়াল স্ট্যাম্পে অঙ্গীকারনামা গ্রহণ করা হবে। নির্ধারিত সময় শেষে ফিরে না এলে জামানত বাজেয়াপ্ত করা হবে। এ ছাড়া সংশ্লিষ্ট কর্মী এবং তাঁর অভিভাবক/সুপারিশকারীর নামে বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

বাছাইপ্রক্রিয়া সম্পন্ন হলে নিয়োগকর্তা কর্তৃক CCVI/ ভিসাসংক্রান্ত কার্যাদির জন্য প্রমাণাদি প্রাপ্তি সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র বোয়েসেল গ্রহণ করবে। বিস্তারিত তথ্য এই লিংকে জানা যাবে।