default-image

চিকিৎসক ঢাকায় আর রোগী বাগেরহাটের এক গ্রামে। রোগীর চিকিৎসাসেবায় এই দূরত্ব ঘুচিয়ে দিয়েছে প্রযুক্তি। গত শুক্রবার রাজধানীর একটি হোটেলে গিয়ে এমন চিত্রই দেখা গেছে। ওয়েব ক্যামেরাযুক্ত ল্যাপটপ কম্পিউটারের সামনে বসে ছিলেন মার্কিন স্তন ক্যানসার বিশেষজ্ঞ রিচার্ড লাভ। বড় পর্দায় দেখা গেল, একজন স্বাস্থ্যকর্মী বাগেরহাটের রোগীর সঙ্গে কথা বলে রিচার্ড লাভকে স্কাইপের মাধ্যমে তথ্য জানাচ্ছেন আর চিকিৎসক এপাশ থেকে প্রয়োজনীয় পরামর্শ দিচ্ছেন। এভাবেই রামপালের ঝনঝনিয়া গ্রামে ‘সাংবাদিক নাহিদ লীনা ক্যানসার পরামর্শ কেন্দ্র’ চালু হলো। এই ক্যানসার পরামর্শ কেন্দ্রে যাতে টেলিমেডিসিনের মাধ্যমে পৃথিবীর যেকোনো জায়গা থেকে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক পরামর্শ দিতে পারেন, সে জন্য ঝনঝনিয়া এলাকায় উচ্চগতির তারহীন ওয়াই-ফাই নেটওয়ার্কও চালু করা হয়েছে। ঢাকায় বসেই ইন্টারনেটের মাধ্যমে দেখা গেল, ঝনঝনিয়ায় এই ক্যানসার পরামর্শ কেন্দ্রের উদ্বোধন করছেন স্থানীয় সাংসদ তালুকদার আব্দুল খালেক। তিনি বলেন, ‘গ্রামে ইন্টারনেটের মাধ্যমে ক্যানসার চিকিৎসার কার্যক্রম একটি উদাহরণ হয়ে থাকবে। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন রামপাল সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শেখ বজলুর রহমান, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান শেখ আবদুল জলিলসহ অনেকে। ঢাকায় অনুষ্ঠানের অপর প্রান্তে আরও উপস্থিত ছিলেন আমাদের গ্রামের পরিচালক রেজা সেলিম, পরিচালনা পর্ষদের সদস্য দেবাশীষ নাগ ও প্রকল্প সমন্বয়কারী তাহমিনা ফেরদৌস। উদ্বোধনের পর প্রথম দিনে এই কেন্দ্রে আটজন নারীকে চিকিৎসা ও পরামর্শ দেওয়া হয়।

রেজা সেলিম বলেন, ‘এই ক্যানসার নিরাময় কেন্দ্রের আশপাশে তিন কিলোমিটার এলাকা ওয়াই-ফাই ইন্টারনেটের আওতায় আনা হয়েছে। দূরবর্তী অঞ্চলে দক্ষ চিকিৎসক সব সময় পাঠানো সম্ভব হয় না বলেই টেলিকনফারেন্সের মাধ্যমে রোগী দেখার ব্যবস্থা শুরু করেছি।’ আপাতত শুধু ক্যানসার শনাক্ত করা এবং প্রাথমিক চিকিৎসার ব্যবস্থা থাকলেও পাঁচ বছরের মধ্যে একটি তথ্যপ্রযুক্তিনির্ভর পূর্ণাঙ্গ একটি ক্যানসার নিরাময় কেন্দ্র এখানে গড়ে তোলা হবে বলে তিনি জানান।
—মেহেদী হাসান

বিজ্ঞাপন
প্রযুক্তি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন