default-image

সম্প্রতি দেশের বাজারে স্যামসাং উন্মুক্ত করেছে টাইজেন অপারেটিং সিস্টেমনির্ভর প্রথম স্মার্টফোন জেড ১। এর মধ্যেই স্মার্টফোনটি বাংলাদেশের বাজারে ভালো সাড়া ফেলেছে বলে দাবি করেছে স্যামসাং কর্তৃপক্ষ। ৩ ফেব্রুয়ারি আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণার পর ৫ ফেব্রুয়ারি থেকে দেশে এ স্মার্টফোনটির বিক্রি শুরু হয়।
স্যামসাং মোবাইল বাংলাদেশের প্রধান হাসান মেহেদি জানান, বাংলাদেশের বাজারে এক সপ্তাহের কম সময়ে ২০ হাজার ইউনিটের বেশি বিক্রি হয়েছে নতুন ওএস হিসেবে টাইজেন অপারেটিং সিস্টেমচালিত জেড ১। শিগগিরই আরও স্মার্টফোন বাজারে ছাড়া হচ্ছে। ভারতের বাজারে সফলতার সঙ্গে এই ফোনটি বাজারে আনার পর এই ফোনটি বাংলাদেশের জন্য বিশেষায়িত করে বাজারে আনা হয়।
হাসান মেহেদি আরও জানিয়েছেন, জেড ১ হচ্ছে টাইজেনচালিত প্রথম স্মার্টফোন। এই অপারেটিং সিস্টেমে দ্রুত ওয়েব ব্রাউজ করা যায় এবং এর ইউজার ইন্টারফেস খুবই সরল। এই ফোনটিতে বিশেষ প্রিমিয়াম কনটেন্ট যুক্ত করেছে স্যামসাং। ছয় হাজার ৯০০ টাকা দামের এই স্মার্টফোনটিতে থাকছে ৪৮০ বাই ৮০০ পিক্সেল রেজুলেশনের চার ইঞ্চি ডিসপ্লে, পেছনে ৩.২ মেগাপিক্সেল ও সামনে ভিজিএ ক্যামেরা। ১.২ গিগাহার্টজ প্রসেসরের এই স্মার্টফোনটিতে র‍্যাম ৭৬৮ এমবি। দুই সিম সুবিধার এই স্মার্টফোনটিতে থ্রিজি, ওয়াই-ফাই, ব্লুটুথ সুবিধাও রয়েছে।
স্যামসাংয়ের প্রশিক্ষণ ও উন্নয়ন বিভাগের কর্মকর্তা মো. শাহরিয়ার জানিয়েছেন, ‘বাংলাদেশের স্মার্টফোন বাজার বিশেষভাবে গবেষণা করে এই স্মার্টফোনটি বাজারে আনা হয়েছে। ফিচার ফোন ব্যবহারকারীদের স্মার্টফোনের অভিজ্ঞতা দিতে তৈরি হয়েছে টাইজেনচালিত এই ফোনটি। বাংলাদেশের ব্যবহারকারীদের জন্য আমরা স্যামসাং জেড ১ স্থানীয় চাহিদা অনুযায়ী কাস্টমাইজ করে তৈরি করা হয়েছে। এর ফলে বর্তমান ফিচার ফোন ব্যবহারকারীদের জন্য স্মার্টফোন ব্যবহার সহজ হবে।’
মো. শাহরিয়ার আরও বলেন, টাইজেন হচ্ছে লিনাক্সভিত্তিক মুক্ত অপারেটিং সিস্টেম। গুগলের অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেমের ওপর নির্ভরতা কমাতে টাইজেন অপারেটিং সিস্টেম তৈরি করছে স্যামসাং। টাইজেন অ্যাপ স্টোরে বর্তমানে এক হাজারেরও বেশি অ্যাপ আছে। এ ছাড়া বাংলাদেশের জন্য হ্যান্ডসেটটিতে সংবাদ, অনলাইন বাজার এবং চাকরি খোঁজার প্রয়োজনীয় অ্যাপ এনেছে স্যামসাং। এতে আছে প্রথম আলোসহ অনলাইনে খবর পড়ার অন্যান্য অ্যাপ। এতে আরও আছে প্রিলোডেড ফেসবুক, লিঙ্কডইন এবং টুইটারের মতো জনপ্রিয় মাধ্যম। স্যামসাং জেড ১-এর আরও থাকছে স্থানীয় ব্যবহারের সুবিধার জন্য ‘প্রেয়ার টাইম’ অ্যাপ। বাংলাদেশের বিশেষ উত্সবগুলোকে আরও স্মরণীয় করার জন্য আছে ‘ফেস্টিভ্যাল ওয়ালপেপার’ অপশন। প্রতিটি বিশেষ দিন উপলক্ষে ফোনটির লকস্ক্রিন ওয়ালপেপার স্বয়ংক্রিয়ভাবে পরিবর্তিত হয়ে যাবে।
প্রায় বছর দুই আগে অ্যান্ড্রয়েড ও আইওএস প্ল্যাটফর্মের বিকল্প হিসেবে টাইজেনের উন্নয়ন শুরু করেছিল স্যামসাং ও ইনটেল। প্রথম দিকে এই ওএস তৈরির লক্ষ্য ছিল হাই-এন্ডের স্মার্টফোন তৈরি, যাতে তা অ্যান্ড্রয়েডচালিত স্মার্টফোন ও আইফোনের বিকল্প হতে পারে। কিন্তু পরে স্যামসাং সেই পরিকল্পনা থেকে সরে এসে এন্ট্রি লেভেলের স্মার্টফোন ও বিভিন্ন ইন্টারনেট সুবিধাযুক্ত পণ্যে টাইজেন ব্যবহারের জন্য সিদ্ধান্ত নেয়। এখন, স্মার্টফোন ছাড়াও এই অপারেটিং সিস্টেমটি স্মার্টটিভি, পরিধেয় প্রযুক্তিপণ্য, ডিজিটাল ক্যামেরা কিংবা অন্যান্য যন্ত্রেও ব্যবহারের কথা ভাবছে প্রতিষ্ঠানটি।
সম্প্রতি বিশ্ববাজারে স্মার্টফোনের ব্যবসায় তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতার মুখে পড়েছে স্যামসাং। কিন্তু টাইজেন ওএস দিয়ে শিগগিরই স্মার্টফোন ব্যবসা ঘুরিয়ে নেওয়ার পরিকল্পনার পরিবর্তে উন্নয়নশীল বাজার দখলের চেষ্টা করছে প্রতিষ্ঠানটি। যাঁরা প্রথমবারের মতো স্মার্টফোন অভিজ্ঞতা পেতে চান এবং ফিচার ফোন থেকে স্মার্টফোনে আসতে চান, সেই গ্রাহকদের আকৃষ্ট করতে টাইজেন নিয়ে কাজ করছে প্রতিষ্ঠানটি।

বিজ্ঞাপন
প্রযুক্তি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন