বিজ্ঞাপন

শেয়ার মোট তিনবার স্প্লিট হয়

প্রতি শেয়ারের দাম ১৮ ডলার হলে এক হাজার ডলারে আপনি আমাজনের ৫৫টি শেয়ার পেতেন। সঙ্গে কিছু খুচরা পয়সা অবশ্য ফিরিয়ে দিত। যাহোক, এখানে জানার ব্যাপারটি হলো, এ পর্যন্ত আমাজনের শেয়ার মোট তিনবার ‘স্প্লিট’ হয়েছে।

default-image

স্প্লিটের সাধারণ মানে যা, এ ক্ষেত্রেও তা-ই। অর্থাৎ, প্রতি শেয়ার ভাগ হয়ে একাধিক শেয়ারে পরিণত হওয়া। ১৯৯৮ সালের জুনে প্রথম স্প্লিট হয়, প্রতি শেয়ারের বিনিময়ে দুটি শেয়ার দেয় আমাজন। অর্থাৎ, আপনার ৫৫টি শেয়ার সে সময় ১১০টি শেয়ারে পরিণত হতো।

পরবর্তী স্প্লিট হয় ১৯৯৯ সালের জানুয়ারিতে। সে সময় প্রতি শেয়ারের বিনিময়ে তিনটি করে শেয়ার দেওয়া হয়। আপনার ১১০টি শেয়ার তখন ৩৩০টি শেয়ারে পরিণত হতো। একই বছরের সেপ্টেম্বরে আবার শেয়ার স্প্লিট হয়, সেবার প্রতি শেয়ার স্প্লিট হয়ে দুটি করে শেয়ারে পরিণত হয়। অর্থাৎ, আইপিওর সময় কেনা ৫৫টি শেয়ার ১৯৯৯ সালের শেষ নাগাদ মোট ৬৬০টি শেয়ারে পরিণত হতো।

এবার বর্তমানে ফিরে আসি। গতকাল নাজদাক স্টক এক্সচেঞ্জ বন্ধ হওয়ার আগে আমাজনের প্রতি শেয়ার সর্বশেষ ৩ হাজার ২৪৪ দশমিক ৯৯ ডলারে বিনিময় হয়। সে সময় আপনি যদি আপনার মালিকানাধীন ৬৬০টি শেয়ার বিক্রি করে দিতেন, তবে পেতেন মোট ২১ লাখ ৪১ হাজার ৬৯৩ দশমিক ৪০ ডলার। কিংবা বাংলাদেশি মুদ্রায় ১৮ কোটি ১৬ লাখ ১৫ হাজার ৬০০ টাকা।

২০১৮ সালে বিশ্বের দ্বিতীয় প্রতিষ্ঠান হিসেবে আমাজনের বাজারমূল্য এক ট্রিলিয়ন বা এক লাখ কোটি ডলার ছাড়িয়ে যায়। সেটির প্রতিষ্ঠাতা জেফ বেজোস এখন বিশ্বের শীর্ষ ধনী।

default-image

সারাংশ করলে যা দাঁড়ায়

আমাজনের আইপিওর সময় আপনি যদি এক হাজার ডলার খরচ করে প্রতিষ্ঠানটির শেয়ার কিনতেন, তবে পেতেন ৫৫টি শেয়ার (সঙ্গে ১০ ডলার ফেরত পেতেন)। সেটি তিনবার স্প্লিট হয়ে হতো মোট ৬৬০টি শেয়ার। আর প্রতিটি ৩ হাজার ২৪৪ দশমিক ৯৯ ডলারের বিনিময়ে সেগুলো এখন বিক্রি করতে পারতেন মোট ১৮ কোটি ১৬ লাখ ১৫ হাজার ৬০০ টাকায়। অর্থাৎ, শুরুর সেই বিনিয়োগের ২ হাজার ১৬৩ গুণের বেশি।

প্রযুক্তি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন