প্রিয় এসএসসি ২০২২ পরীক্ষার্থীরা, তোমাদের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ পরামর্শ দিয়েছেন বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষ এবং প্রধান শিক্ষকেরা।

ব্রাদার লিও পেরেরা

খাতায় অপ্রয়োজনীয় কিছু লিখবে না

তোমার পরীক্ষা নিয়ে একটি পরিকল্পিত সময়সূচি তৈরি করে নাও। নির্ধারিত পাঠ্যসূচি অনুযায়ী পাঠ্যপুস্তকের অধ্যায়গুলো রিভিশন দাও। হাতের লেখা স্পষ্ট ও সুন্দর যেন হয়, অযথা কাটাকাটি করবে না। সৃজনশীল প্রশ্নের উত্তর নিয়মানুযায়ী প্রতিটি ধাপ সঠিকভাবে লিখবে। পরীক্ষার খাতায় অপ্রয়োজনীয় কোনো তথ্য লিখবে না।

রাতে প্রয়োজনমতো ছয় থেকে সাত ঘণ্টা বিশ্রাম নেবে। ভালো ফল অর্জন করা শিক্ষার্থীর দায়িত্ব। তার জন্য পরিকল্পিতভাবে পরিশ্রম করতে হবে। মনে রেখো, পরীক্ষায় ভালো ফল ও জ্ঞান অর্জন করার পাশাপাশি পেশা ও জীবনের জন্য তৈরি হওয়া ও ভালো মানুষ হওয়া জরুরি প্রয়োজন ও প্রধান লক্ষ্য।

ব্রাদার লিও পেরেরা, অধ্যক্ষ, সেন্ট যোসেফ উচ্চমাধ্যমিক বিদ্যালয়, ঢাকা

রাশিদা আক্তার

দুর্বলতা চিহ্নিত করে তা শুধরে নাও

প্রিয় পরীক্ষার্থী, যে যে বিষয়ে তোমাদের প্রস্তুতির ঘাটতি ছিল, তা এখন পুষিয়ে নেওয়া সম্ভব । এখন তোমাদের কাজ হবে শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি সম্পন্ন করা। প্রতিদিন একটি বিষয় সামনে রেখে এর সব দুর্বলতা চিহ্নিত করে, তার চূড়ান্ত প্রস্তুতি শেষ করা। বিষয়ভিত্তিক দুর্বলতা চিহ্নিত করে প্রস্তুতি নেওয়া। সম্ভব হলে দিন শেষে একটি ডেমো পরীক্ষা দিয়ে মা–বাবাকে দিয়ে বা নিজেই নিজের খাতা মূল্যায়ন করে আত্মবিশ্বাস অর্জন করা।

সময় ব্যবস্থাপনা গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। পরীক্ষার হলে যেন সময়ের মধ্যেই তোমার লেখা শেষ করতে পারো, সে দিকে নজর দিতে হবে। পরীক্ষাভীতি মন থেকে দূর করে খাতায় প্রতিটি প্রশ্নের উত্তর সঠিকভাবে লিখতে হবে।

রাশিদা আক্তার, প্রধান শিক্ষক, কুমিল্লা জিলা স্কুল, কুমিল্লা

ব্রিগেিডয়ার জে. মো. আব্দুল হান্নান (অব.)

আত্মবিশ্বাস রেখো পরীক্ষা ভালো হবে

প্রিয় পরীক্ষার্থী, ঠিক সময় বাসা থেকে বের হবে, যাতে সময়মতো পরীক্ষার হলে পৌঁছাতে পারো। পরীক্ষার খাতার বিভিন্ন অংশ যত্নসহকারে পূরণ করবে। প্রশ্ন হাতে পাওয়ার পর ধীরস্থিরভাবে বহুনির্বাচনি অংশ পূরণ করবে। যে প্রশ্নগুলোর উত্তর সহজ মনে করো, তা প্রথমে উত্তর করবে, পরে বাকিগুলোর উত্তর করবে। সৃজনশীল প্রশ্নগুলো মনোযোগসহকারে পড়ে প্রশ্নের উত্তর করতে হবে।

পরীক্ষার দিনগুলোতে মুঠোফোন ব্যবহার করা কমিয়ে ফেলবে। বাইরে বের হলে অবশ্যই মুখে মাস্ক ব্যবহার করবে। পরীক্ষার কোনো বিষয় নিয়ে অযথাই কোনো চিন্তা করবে না। যেভাবে প্রস্তুতি নিয়েছ, তার ওপর বিশ্বাস রেখো, তাতেই ভালো করবে।

ব্রিগেিডয়ার জে. মো. আব্দুল হান্নান (অব.) অধ্যক্ষ, স্কলার্স স্কুল, ঢাকা

মো. আবু সাঈদ মোল্ল্যা

পরীক্ষা নিয়ে কোনো ভয় পাবে না

পরীক্ষা নিয়ে চিন্তার কোনো কারণ নেই। আমি বিশ্বাস করি, শিক্ষার্থীরা সৃজনশীল ও মেধাবী। পরীক্ষার সময় তারা খুব সহজেই নিজেদের প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার বিষয়টি সঠিকভাবে করতে পারবে। তোমরা অবশ্যই ঠিক সময়ে ঘুমাতে যাবে, সুষম খাবার গ্রহণ করবে এবং তোমাদের পঠিত বিষয়গুলো বারবার অনুশীলন করবে। পরীক্ষার হলে সঠিক সময়ে পৌঁছাবে। তোমাদের উত্তরপত্র পূরণ করার সময় মনোযোগসহকারে বৃত্ত ভরাট করবে। সেট কোড, রেজিস্ট্রেশন ও রোল নম্বর সঠিকভাবে পূরণ করবে। প্রশ্নপত্র হাতে পাওয়ার পর প্রথমে ভালোভাবে পড়বে, তারপর উত্তর লিখবে। অতিরিক্ত কোনো চাপ মাথায় নেবে না।

মো. আবু সাঈদ মোল্ল্যা, প্রধান শিক্ষক, শ্রীকোল মাধ্যমিক বিদ্যালয়, মাগুরা

আরও পড়ুন

প্রশ্নের উত্তর বড় করার চেয়ে সঠিক হওয়া বেশি গুরুত্বপূর্ণ