এমনিতে ঢাকাই চলচ্চিত্রে মন্দাবস্থা ছিল। এর মধ্যে বিগত দুই বছর করোনায় সংকট তীব্র হয়। সংগত কারণে পুরোপুরি তৈরি হওয়ার পরও বেশ কিছু ছবি মুক্তি থেমে ছিল। করোনার প্রকোপ কমেছে, দিন ফিরছে। আশার আলো দেখাচ্ছে বড় বাজেটের সিনেমা। যে ছবিগুলোর আশায় সারা দেশে টিকে থাকা ১১২টি সিনেমা হলের পাশাপাশি দীর্ঘদিন পর সারা দেশে বন্ধ থাকা ৪০টি হল খুলবে। এখন ধুয়েমুছে পরিষ্কারের কাজ চলছে।

দীর্ঘদিন পর কোনো ঈদে দেশের চলচ্চিত্রজগতের সবচেয়ে ‘প্রভাবশালী’ তারকা শাকিব খানের দুটি ছবি মুক্তি পাচ্ছে একই সঙ্গে। এর মধ্যে সরকারি অনুদান পাওয়া ‘গলুই ’সম্প্রতি বানানো। অন্যদিকে ‘বিদ্রোহী ’ছবিটি নির্মাণের তিন বছর পর মুক্তি পাচ্ছে। মুক্তির মিছিলে থাকা ‘শান ’সাড়ে ৪ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মাণ করা হয়েছে বলে দাবি করেছেন প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের একজন প্রতিনিধি। ‘বিদ্রোহী ’সিনেমার বাজেট ৩ কোটি। অন্যদিকে ২০২০-২১ অর্থবছরে সরকারি অনুদানের শাকিব খানের ‘গলুই’ সিনেমার বাজেট ২ কোটি ২০ লাখ টাকা বলে জানিয়েছেন সিনেমাটির প্রযোজক খোরশেদ আলম। সব মিলে এবারের ঈদুল ফিতরে মোট প্রায় ১০ কোটি টাকার সিনেমা মুক্তি পাবে।

এবারের ঈদের ছবির তালিকায় থাকা চারটি ছবির বৈশিষ্ট্য হলো প্রতিটি ছবিই আলাদা গল্পের। এর মধ্যে সত্য ঘটনা অবলম্বনে পুলিশি অ্যাকশন থ্রিলার শান সিনেমা নির্মাণ করেছেন তরুণ নির্মাতা এম রাহিম। ‘বিদ্রোহী ’ছবিটি অ্যাকশন থ্রিলার।

অন্যদিকে গলুই সিনেমায় গ্রামবাংলার ঐতিহ্যবাহী নৌকাবাইচ প্রতিযোগিতা ও বিস্তীর্ণ এক জনপদের মানুষের জীবনের গল্পের দেখা মিলবে। এ ছবিসহ ঈদের দুটি সিনেমার নায়ক শাকিব খান প্রথম আলোকে, ‘ঈদ উৎসবে ছবি মুক্তি পাওয়াটা অভিনয়শিল্পী হিসেবে আমার জন্য খুব আনন্দের।’

ঈদ কেন্দ্র করে নাটকের বাজার চাঙা। করোনা-পরবর্তী সময়ে, শুটিং বাড়িগুলো প্রাণ ফিরে পেয়েছে। সব কটি শুটিং বাড়িতে সকাল থেকে শুটিং শুরু হয়ে, চলে মধ্যরাত পর্যন্ত। ঈদের আগে শুটিং বাড়িগুলোয় কোনো বিরতি নেই। প্রতিটি চ্যানেল ঈদ উপলক্ষে নতুন নতুন নাটকের প্রস্তুতি নিয়েছে।

চলচ্চিত্রের পাশাপাশি টেলিভিশনেও চলছে ঈদ উদ্‌যাপনের প্রস্তুতি। ঈদ কেন্দ্র করে নাটকের বাজার চাঙা। করোনা-পরবর্তী সময়ে, শুটিং বাড়িগুলো প্রাণ ফিরে পেয়েছে। সব কটি শুটিং বাড়িতে সকাল থেকে শুটিং শুরু হয়ে, চলে মধ্যরাত পর্যন্ত। ঈদের আগে শুটিং বাড়িগুলোয় কোনো বিরতি নেই। প্রতিটি চ্যানেল ঈদ উপলক্ষে নতুন নতুন নাটকের প্রস্তুতি নিয়েছে। খবর নিয়ে জানা গেছে, এবার বাংলাদেশ টেলিভিশন ছাড়াও অন্তত ১২টি বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল ঈদের বিশেষ অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে। এর মধ্যে নাটকের পাশাপাশি রয়েছে গান, নাচসহ ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান। সব কটি চ্যানেলই ঈদের আগের দিন থেকে টানা সাত দিন বিভিন্ন আয়োজন রেখেছে। এর মধ্যে সাড়ে চার শতাধিক নাটক তৈরি হয়েছে ঈদ সামনে রেখে। এর বাইরে ইউটিউবের জন্যও আলাদা করে নাটক তৈরি হচ্ছে। সব মিলিয়ে ২০ কোটি টাকারও বেশি বিনিয়োগ হয়েছে এখানে।

এবারের ঈদের নাটকগুলোর বিশেষ দিক হলো তারুণ্যের প্রাধান্য। সংখ্যার দিক থেকে বেশি নাটকে অভিনয় করা শিল্পীর তালিকায় নতুন নতুন মুখ আসছে। ঈদনাটকে এগিয়ে থাকা অভিনয়শিল্পীদের তালিকায় আছেন জোভান, তৌসিফ, ইয়াশ, খাইরুল বাসার, শামীম সরকার, সৈয়দ শাওন, তামিম মৃধা, তানজিন তিশা, সাবিলা নূর, মুমতাহিনা টয়া, সাফা কবির, কেয়া পায়েল, তাসনিয়া ফারিণ, সামিরা মাহি, সুমাইয়া হিমি, পারসা ইভানা প্রমুখ।

জাহিদ হাসান, মোশাররফ করিম, চঞ্চল চৌধুরী, আফরান নিশো, অপূর্ব, মেহজাবীন চৌধুরীসহ অনেক অভিনয়শিল্পীকে এবার তুলনামূলক কম দেখা যাবে টেলিভিশন নাটকে।

তবে প্রতিষ্ঠিত তারকারা যে বসে আছেন বা কাজ কম করছেন, তা মোটেও না। বরং ব্যস্ত সময় পার করছেন তাঁরা। বড় তারকারা এখন বেশি সময় দিচ্ছেন ওটিটি বা ভিডিও স্ট্রিমিং প্ল্যাটফর্মের কাজে। এ বিবেচনায় বলা যায় এবার ঈদে বিনোদন দুনিয়ার বড় ভূমিকা রাখবে অনলাইন প্ল্যাটফর্মগুলো। এ তালিকায় এগিয়ে আছে ভিডিও স্ট্রিমিং প্ল্যাটফর্ম ‘চরকি’। তারা যেমন নিজেদের প্রযোজিত ফ্লোর নম্বর ৭ ঈদে মুক্তি দিচ্ছে, তেমনি চরকিতে দেখা যাবে ‘অগ্নি,’ , ‘রোমিও জুলিয়েট’, ‘হিরো ৪২০,’ ‘অঙ্গার’ ও ‘ভালোবাসা আজকাল’সহ সাতটি সিনেমা। চরকির প্রধান পরিচালন কর্মকর্তা রেদওয়ান রনি প্রথম আলোকে বলেন, ‘এটা চরকির প্রথম ঈদ। আমরা বলছি এল মুভির ঈদ। তাই এটা ঘিরে নানান আয়োজন সাজানো হয়েছে।’

চরকি ছাড়াও অনলাইন দুনিয়ায় ভারতীয় প্রতিষ্ঠান হইচইও ঈদ উপলক্ষে বেশ কিছু কনটেন্ট নিয়ে আসছে। অনলাইন প্ল্যাটফর্মের নাটক, ওয়েব ফিল্ম, ওয়েব সিরিজের কলেবর এত বড় যে অনেক সময় সিনেমা থেকেও এর বাজার প্রভাব বেশি হয়। বলা যায়, এখন ঘরে ঘরে সিনেমা হল। দিনে দিনে এখানে যেমন বাড়ছে দর্শক, বাড়ছে সম্ভাবনাও।