বাহুবলী সিরিজের সাফল্যের পর দক্ষিণের প্রভাসে তকমা হয়ে যায় ভারতের প্রভাস।
বাহুবলী সিরিজের সাফল্যের পর দক্ষিণের প্রভাসে তকমা হয়ে যায় ভারতের প্রভাস।ছবি: ইনস্টাগ্রাম
১৫ বছর ধরে ‘খুবই ভালো বন্ধু’ ৪১ বছর বয়সী প্রভাস আর ৩৯ বসন্ত পার করা আনুশকা শেঠি। জনসমক্ষেও তাঁদের দুজনের বেশ স্বাচ্ছন্দ্য, সাবলীল সম্পর্ক বারবার ধরা পড়েছে ক্যামেরার চোখে। কিন্তু দুজনে ডুবে ডুবে জল খাচ্ছেন কি না, এমন প্রশ্নের উত্তরে দুজনেই বলেছেন মুখস্থ সেই উত্তর, ‘না, আমরা খুবই ভালো বন্ধু।’ প্রভাস আর আনুশকার প্রেমকাব্য নিয়ে দিস্তার পর দিস্তা লেখা হলেও কেউ কখনোই স্বীকার করেননি প্রেমের কথা। বিয়ে কবে, কার সঙ্গে বিয়ে—ভক্তদের এ নিয়ে জোর আলোচনা। পাঠকের জন্য দক্ষিণের বড় তারকা গল্পের দ্বিতীয় অংশ আজ।

ফ্লপ সিনেমা প্রভাসকে দিল নিকনেম: ডার্লিং প্রভাস, রেবেলস্টার প্রভাস

২০১০ সালে মুক্তি পেল প্রভাস অভিনীত রোমান্টিক কমেডি ধাঁচের ‘ডার্লিং’ সিনেমাটি। এরপরই প্রভাসের নাম হয়ে গেল ডার্লিং প্রভাস। ২০১২ সালে ‘রেবেল’ মুক্তির পর প্রভাসকে ভক্তরা রেবেলস্টার প্রভাস নামে ডাকা শুরু করলেন। অথচ দুটি সিনেমাই বক্স অফিসে চূড়ান্ত ব্যর্থ। যদিও দুটি ছবিতে প্রভাসের অভিনয়ের প্রশংসা করেছেন সমালোচকেরা। ‘রেবেল’কে সিনেমা সমালোচক রাধিকা রাজমনী পাঁচের মধ্যে মাত্র দেড় পয়েন্ট দিয়ে লিখেছেন, ‘প্রভাসের অভিনয়দক্ষতা আর তামান্না ভাটিয়ার দুর্দান্ত নাচ নিয়ে পরিচালক একটা অদ্ভুত গল্প ফেঁদে কী করবেন, যেন বুঝতে পারছিলেন না।’ ছবি ফ্লপ করার কারণ হিসেবে দুষেছেন দুর্বল চিত্রনাট্য আর পরিচালনাকে।

default-image
বিজ্ঞাপন

সমালোচকেরা বলেন, বড় পর্দায় ৬ ফুট ১ ইঞ্চি উচ্চতা ও ৯৫ কেজি ওজনের প্রভাসের উপস্থিতি আর তাঁর মারমার কাটকাট অ্যাকশনদৃশ্য উপস্থিত দর্শকদের মধ্যে হইচই ফেলে দেওয়ার জন্য যথেষ্ট। এই ছবিগুলো ছাড়াও ‘মুন্না’, ‘মিরচি’, ‘মিস্টার পারফেক্ট’, ‘অ্যাকশন জ্যাকসন’ ছবিগুলোও প্রভাসকে প্রভাস বানাতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছে।

default-image

প্রভাসের চোখে সুপারস্টার তাঁরা
প্রভাসের বাবা সব সময় তাঁকে মাটির কাছাকাছি আর বিনয়ী থাকতে বলতেন। বলতেন, একজন তারকার সবচেয়ে বড় গুণ হওয়া উচিত তাঁর বিনয়। সেই কথা হাড়ে হাড়ে মেনে চলেছেন প্রভাস। তাই তো প্রভাসকে বলা ‘দ্য হাম্বল সুপারস্টার’। নিজের সঙ্গে সুপারস্টার ট্যাগ লাগাতে নারাজ প্রভাস। প্রভাসের চোখে রজনীকান্ত, কমল হাসান, অক্ষয় কুমার, শাহরুখ খান, সালমান খান আর আমির খানেরা সুপারস্টার। প্রভাসের মতে, একটি–দুটি সিনেমা দিয়ে কেউ সুপারস্টার হতে পারেন না। সুপারস্টার হতে গেলে দশকের পর দশক ধরে একের পর এক দর্শকপ্রিয় সিনেমা উপহার দিয়ে নিজের উচ্চতা ধরে রাখতে জানতে হয়। তাই প্রভাস সুপারস্টার কি না, সেটি নাকি পরিমাপের সময় এখনো আসেনি। সিনেমা হিট হওয়ার জন্য প্রভাস নিজে কখনো কৃতিত্ব নেন না। সমস্ত কৃতিত্ব দেন লেখক, পরিচালক আর কলাকুশলীদের।

default-image

আর বলেন, ‘আমি প্রভাস নই। আমি “বাহুবলী”ও নই। আমি এসবের আড়ালে একজন “সিম্পল ম্যান”।' একের পর এক রেকর্ড!

‘আদি পুরুষ’ সিনেমার জন্য তির চালনো শিখছেন প্রভাস। সেই তির সোজা গিয়ে বিঁধেছে দক্ষিণ ভারতের মহাতারকা রজনীকান্তের ব্যাংক অ্যাকাউন্টে। বুঝলেন না বিষয়টা? বুঝিয়ে বলছি।

default-image

পরের সিনেমা ‘আদি পুরুষ’–এর জন্য ১০০ কোটি রুপি পারিশ্রমিক নেবেন প্রভাস। আর এই পারিশ্রমিক প্রভাসের নাম তুলেছে রেকর্ড বইয়ের নতুন পাতায়। এর আগে ‘দরবার’ সিনেমার জন্য রজনীকান্ত ৭০ কোটি রুপি নিয়ে যে জায়গা দখল করেছিলেন, প্রভাস নিজেকে নিয়ে গেছেন এর চেয়েও এক ধাপ ওপরে। ‘বাহুবলী দ্য বিগিনিং’ আর ‘বাহুবলী দ্য কনক্লুশন’ ছবির জন্য প্রভাস ২০ কোটি আর ৪০ কোটি রুপি পারিশ্রমিক গুনেও গড়েছিলেন রেকর্ড।

default-image

প্রভাস আর আনুশকা ‘থ্রি এএম ফ্রেন্ড’
১৫ বছর ধরে ‘খুবই ভালো বন্ধু’ ৪১ বছর বয়সী প্রভাস আর ৩৯ বসন্ত পার করা আনুশকা শেঠি। জনসমক্ষেও তাঁদের দুজনের বেশ স্বাচ্ছন্দ্য, সাবলীল সম্পর্ক বারবার ধরা পড়েছে ক্যামেরার চোখে। কিন্তু দুজনে ডুবে ডুবে জল খাচ্ছেন কি না, এমন প্রশ্নের উত্তরে দুজনেই বলেছেন মুখস্থ সেই উত্তর, ‘না, আমরা খুবই ভালো বন্ধু।’ প্রভাস একটু ব্যাখ্যা করে বলেছেন, ‘ওর সঙ্গে সবচেয়ে বেশি সিনেমা করেছি, সময় কাটিয়েছি, বন্ধুত্বও হয়েছে, তাই লোকে অমন বলে।’

বিজ্ঞাপন
default-image

আর আনুশকা বলেছেন, ‘আমার আর প্রভাসের ১৫ বছরের বন্ধুত্ব। প্রভাসকে আমি রাত তিনটায়ও ফোন করে বকবক করতে পারি। ও আমার “থ্রি এএম ফ্রেন্ড”।’ প্রভাস আর আনুশকার প্রেমকাব্য নিয়ে দিস্তার পর দিস্তা লেখা হলেও কেউ কখনোই স্বীকার করেননি প্রেমের কথা। আবার দুজনেই এই বিয়ে করছেন করবেন করে কেউ বিয়েও করেননি। কে জানে, হয়তো দীপিকা পাড়ুকোন আর রণবীর সিংয়ের মতো এই দুই ভালো বন্ধুও বিয়ের ঘোষণা দিতে পারেন।

আনুশকা আর প্রভাসের বিয়েতে বাধা কোথায়?

প্রভাস খুবই রক্ষণশীল পরিবারের ছেলে। তাঁর মা অত্যন্ত কড়া শাসনে তাঁদের তিন ভাইবোনকে মানুষ করেছেন। তাঁদের পরিবার ‘লাভ ম্যারেজ’–এর পক্ষে নয়। বিশেষ করে নায়িকাকে ঘরের বউ করে আনায় সম্মতি নেই প্রভাসের মা শিবা কুমারীর। আর প্রভাসও মায়ের অমতে বিয়ে করবেন না।

default-image

দুই বছর ধরে ‘এ বছরই বিয়ে করবেন প্রভাস

’দুই বছর ধরে প্রভাসের মামা পারিবারিক বিবৃতিতে বলে আসছেন, এ বছরই বিয়ে করবেন প্রভাস। কিন্তু বিয়ের খোঁজ নেই! শোনা গেছে, বিয়ের জন্য ২৩ বছর বয়সী ইঞ্জিনিয়ার মেয়েও ঠিক করা হয়েছে প্রভাসের জন্য। কিন্তু এসব কোনো কিছু নিয়েই টুঁ শব্দটি করেননি প্রভাস। প্রেম, বিয়ে নিয়ে প্রশ্ন করা প্রশ্নের উত্তরে সব সময় লাজুক হাসি দিয়েই এড়িয়ে গেছেন। সালমান খানের পর প্রভাস ভারতের সেকেন্ড মোস্ট এলিজিবল ব্যাচেলর। ‘সাহো’ সিনেমার প্রচারণায় কাপিল শর্মার শোতে বলা হয়েছিল, প্রভাসের বিয়ের জন্য নাকি পাঁচ হাজার প্রস্তাব জমা পড়েছে। প্রভাস অবশ্য হেসে মাথা নাড়িয়ে বলেছেন, এসব নাকি গুজব। (চলবে)

default-image
মন্তব্য পড়ুন 0