এত দিন রণবীর এই দিনটার অপেক্ষায় ছিলেন। কয়েক মাস আগে প্রথম আলোকে এক সাক্ষাৎকারে রণবীর বলেছিলেন যে আলিয়া কাজে বের হলে তিনি নিজে তাঁদের হবু সন্তানের দেখভাল করবেন। জানা গেছে, মেয়েকে প্রথম দেখে অত্যন্ত আবেগপ্রবণ হয়ে পড়েছিলেন রণবীর। কাপুর পরিবারের এক কাছের মানুষ বিষয়টি পরিষ্কার করেছেন।

জানা গেছে, হাসপাতালে প্রথম মেয়েকে কোলে নিয়ে আনন্দে কেঁদে ফেলেছিলেন রণবীর। তাঁর চোখ দিয়ে ক্রমাগত পানি বয়ে চলেছিল। কিছুতেই চোখের পানি আটকাতে পারছিলেন না এই বলিউড নায়ক।

রণবীরকে আবেগপ্রবণ হতে দেখে কাপুর আর ভাট পরিবারের উপস্থিত সদস্যরা সবাই আনন্দে কেঁদে ফেলেছিলেন। আলিয়া নিজেও চোখের পানি আটকাতে পারেননি। তাঁর চোখও পানিতে ভরে উঠেছিল।

রণবীর জানিয়েছেন, এমনটি আগে কখনো লাগেনি। মেয়ে হওয়ার পর আলিয়া এক পোস্টের মাধ্যমে জানিয়েছিলেন যে তাঁদের জীবনের সেরা ঘটনা। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করে তিনি বলেন, ‘আমাদের জীবনের সেরা ঘটনা। আমাদের সন্তান ভূমিষ্ট হয়েছে। ও একটা মিষ্টি পুতুলের মতো। মা-বাবা হওয়ার আনন্দ অনুভব করছি।’

‘ব্রহ্মাস্ত্র’ ছবির সেট থেকে আলিয়া আর রণবীরের প্রেমের ভ্রমণ শুরু হয়। এ বছর এপ্রিলে ঘরোয়া অনুষ্ঠানের মাধ্যমে তাঁরা সাত পাকে বাঁধা পড়েছিলেন। বিয়ের মাত্র কয়েক মাস পর আলিয়া জানিয়েছিলেন যে তিনি মা হতে চলেছেন। এখন তাঁরা দুই থেকে তিন হয়েছেন।