আর সেখানেই তিনি কথায় কথায় বাংলাদেশে তাঁর অভিজ্ঞতার কথা শেয়ার করেন। তিনি বলেন, বাংলাদেশে শুটিং করার সময় এক সহকর্মী তার সঙ্গে খারাপ আচরণ করেন। একপর্যায়ে তিনি তাকে চড় মেরে বসেন।

ইট মারলে ত পাটকেল খেতেই হয়। সেই সহকর্মীও চড় খেয়ে বসে ছিলেন না। পাল্টা চড় মেরে বসেন নোরাকে। এই ঝগড়া তখন আরও বেড়ে যায়। নোরা তাকে দ্বিতীয়বার চড় মারলে তার চুল টেনে ধরেন সেই সহকর্মী। তাদের এই ঝগড়া আরও বিশাল আকার ধারন করার আগেই পরিচালক এসে তাদের থামায়। কিন্তু কাকে এবং কেনও তিনি চড় মেরেছিলেন তা বলেননি।

‘রোয়ার টাইগারস অব দ্য সুন্দরবন’ ছবির মধ্য দিয়ে নোরা হিন্দি ছবিতে অভিষেক হয়। আর এই ছবির শুটিং এ তিনি প্রথমবার বাংলাদেশে এসেছিলেন। তখন এই ঘটনা ঘটে। এই সহকর্মী বাংলাদেশ নাকি ভারতের তাও বলেননি তিনি। ১৮ নভেম্বর দ্বিতীয়বারের মতো বাংলাদেশে আসেন তিনি। তখন তিনি বলেন, ঢাকায় এসে আপনাদের ভালোবাসায় আমি মুগ্ধ। বাংলাদেশে আমি বারবার আসতে চাই।