সেই স্মৃতি এখনো সিয়ামকে শিহরিত করে, ‘আমরা রিহার্সাল করছিলাম জোয়ারে। পরে যখন শুটিং শুরু হয়, তখন ভাটা শুরু হয়েছে। এটা আমরা খেয়াল করিনি। সেদিন ভাগ্যক্রমে অল্পের জন্য রক্ষা পেয়েছিলাম।’ চলতি সপ্তাহে তারকাবহুল দুই ছবি মুক্তি পাচ্ছে। বিষয়টি ইতিবাচকভাবেই দেখছেন অভিনেতা, ‘পরাণ ও হাওয়া এখনো চলছে। দর্শক ছবিগুলো দেখছেন। এর মধ্যেই দর্শকদের আগ্রহের দুই সিনেমা মুক্তি পাচ্ছে। গত সপ্তাহে বীরত্ব মুক্তি পেয়েছে। দর্শকদের সামনে পাঁচটি সিনেমা। এমন মুহূর্ত হয়তো বাংলাদেশের দর্শকেরা দীর্ঘদিন দেখেনিন। আজ বাংলা সিনেমার গর্বের দিন। সবাইকে অনুরোধ করব, আপনারা আজ মুক্তি পাওয়া দুটি সিনেমাই দেখুন।’

বাঘের রাজ্যে শুটিং
সুন্দরবনের গহিনে শুটিং হয়েছে সিনেমাটির। মাইলের পর মাইল জনমানুষ নেই। এর মধ্যেই কিছুক্ষণ পরপর বাঘের গর্জন শোনার কথা বলতেন ইউনিটের কেউ কেউ। যা নিয়ে বেশ ভয়ের মধ্যে ছিলেন জিয়াউল রোশান। একদিন রাতে ফেরার পথে পড়েন ঝড়ের কবলে। টিমের সঙ্গে একটি খালে তিন ঘণ্টা আটকে ছিলেন।

default-image

তিনি বলেন, ‘প্রতিবার শুটিংয়ে কত মজার গল্প জমা হয়। কিন্তু এবার শুটিং করতে গিয়ে গায়ের লোম খাড়া হয়ে গিয়েছিল। শুটিং করছি, কিছুটা দূরেই বাঘ এসে পানি খেয়ে যাচ্ছে। চারপাশে বাঘের পায়ের ছাপ। আমরা এতটাই পরিশ্রম করেছি সিনেমাটির জন্য, দর্শকদের নতুন কিছু দেওয়ার জন্য।’ সিনেমায় রোশানকে দেখা যাবে র‍্যাবের কর্মকর্তার চরিত্রে।

default-image

‘এমন শ্বাসরুদ্ধকর ছবি আগে দেখিনি’
‘শ্বাসরুদ্ধকর এমন গল্পের বাংলাদেশি ছবি আগে দেখিনি,’ বললেন দর্শনা বণিক। পশ্চিমবঙ্গের এই অভিনেত্রীও আছেন অপারেশন সুন্দরবন-এ। শুটিংয়ের আগে গল্প শুনেই রাজি হয়েছিলেন। তিনি বলেন, ‘দর্শকেরা খুবই কৌতূহলী ছিলেন সিনেমাটি নিয়ে। ব্যক্তিগতভাবে আমি খুব খুশি। প্রিমিয়ার শোতে সিনেমাটি দেখেছি। আফসোস, পূজার ব্যস্ততায় কলকাতায় ফিরে যেতে হচ্ছে, দর্শকদের সঙ্গে সিনেমাটি দেখা হলো না। দর্শক ভালো ছবি পাচ্ছেন।’
তারকাবহুল ছবিতে আরও আছেন রওনক হাসান, শতাব্দী ওয়াদুদ, এহসানুল হক, মনোজ প্রামাণিক, দিপু ইমাম, সামিনা বাসার।

ঢালিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন