কিন্তু বিষয়টি নিয়ে আপনার কোনো কিছু বলার বা বোঝার আছে না?

আর কী–ই বা বলব! আগেও তো বলেছি, আর কত বলব! এখন বলতে গেলে প্রমাণ নিয়ে মাঠে নামতে হবে। যা অবস্থা দেখছি, সেটাই বাকি থাকল। তবে আজকের শাকিব খানের সাক্ষাৎকার ও তৃতীয় পক্ষ একজনের ফেসবুকে কয়েক দিনের কার্যক্রম নিয়ে আমার সন্দেহ হচ্ছে। আমাদের মধ্যে তৃতীয় পক্ষ একজন হঠাৎ করেই ঢুকে গেছেন। আমার জন্মদিনের উপহারের খবর নিয়ে ফেসবুকে লিংক শেয়ার করে স্ট্যাটাস দেওয়ার বিষয়টি দেখেছি। তা ছাড়া গত কয়েক মাসে ফেসবুকে আপনারা তাঁর বিষয়টি টের পাচ্ছেন। অনেক দিনই আমাকে নিয়ে এই তৃতীয় পক্ষের এমন আচরণ ছিল না। হঠাৎ করেই এত সুন্দর একটা বিষয় ধরে তিনি উপহাস করে স্ট্যাটাস দিয়ে যাচ্ছেন। তাঁর নাম আমি উচ্চারণ করতে চাচ্ছি না। আপনারা ফেসবুকে এই কয়েক দিনের তাঁর কার্যক্রম দেখলেই বুঝবেন। পুরো বিষয়টি নিয়ে আমার কাছে সন্দেহ হচ্ছে।

কেমন সেটা?

কয়েক দিন ধরে তৃতীয় পক্ষে স্ট্যাটাস, আজ শাকিবের বক্তব্য নিয়ে বিষয়টি গভীরভাবে ভাবলে বুঝতে পারবেন সেটা। আজ শাকিব খানের এমন আচরণে সন্দেহ হচ্ছে। আমার সন্দেহ হচ্ছে, তৃতীয় পক্ষের একজনের ইন্ধন আছে এখানে। শাকিব খানের ওপর তাঁর পক্ষ থেকে চাপও থাকতে পারে। এসব শাকিব খানের সঙ্গে তাঁর পূর্বের সম্পর্কের মাঠ তৈরির প্রস্তুতি কি না, এটাও ভাবার বিষয়। তা না হলে হঠাৎ করেই বীরের বাবা শাকিব খান আমার সঙ্গে এমন আচরণ কেন করবে!

এখন কী করতে চান?

শাকিব খানের সঙ্গে বিয়ের আগের ও পরের পুরো বিষয়টি সবার সামনে এখন তুলে ধরা উচিত আমার। মানসিকভাবে বিভিন্নভাবে চাপে রেখে সেই জায়গায়ই নিয়ে যাওয়া হচ্ছে আমাকে। সেসব বিষয় শিগগিরই পরিষ্কার করতে চাই, জানাতে চাই। সেই প্রস্তুতিই নিচ্ছি। এসব মিথ্যাচার আর ভালো লাগছে না।