তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের উপসচিব মুহাম্মদ দেলোয়ার হোসেন স্বাক্ষরিত চিঠিতে বলা হয়েছে, ‘আবদুল আলীমের কালজয়ী গানগুলো সংগ্রহ করে আর্কাইভ করার বিষয়ে বাংলাদেশ বেতার ও সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মতামতের ভিত্তিতে পাকিস্তানে বাংলাদেশ হাইকমিশনের মাধ্যমে করাচি রেডিও ট্রান্সক্রিপশন থেকে গানগুলো সংগ্রহ করে দেশে আনার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য নির্দেশক্রমে অনুরোধ করা হলো।’

গত বছরের ৭ সেপ্টেম্বর প্রথম আলোতে ‘পাকিস্তানে নষ্ট হচ্ছে আবদুল আলীমের গান’ শিরোনামে একটি সংবাদ প্রকাশের পর সরকারিভাবে গানগুলো ফেরানোর উদ্যোগ নিতে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ে আবেদন করে আবদুল আলীমের পরিবার। আবেদন আমলে নিয়ে বাংলাদেশ বেতার ও সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের মতামতের ভিত্তিতে গত বছরের ২২ ডিসেম্বর পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে চিঠি পাঠায় তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়। এর আগে সেপ্টেম্বরে গানগুলো ফেরানোর প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার কথা জানিয়েছেন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ।

ষাটের দশকে করাচি রেডিও এবং পাকিস্তান টেলিভিশনে নিয়মিত গান করতেন আবদুল আলীম। বাংলাদেশের পাশাপাশি পশ্চিম পাকিস্তানেও জনপ্রিয় ছিলেন তিনি। পাঁচ দশকের বেশি সময় তাঁর গান করাচি রেডিওর আর্কাইভে পড়ে রয়েছে বলে জানিয়েছে আবদুল আলীমের পরিবার। স্বাধীনতার পর কূটনৈতিক জটিলতায় গানগুলো আর দেশে ফেরত আনা যায়নি।