default-image

ক্লোজড সার্কিট ক্যামেরায় ধারণ করা ১৯৯৭ সালের ভিডিওটি অনেকেই দেখে থাকবেন। বিশাল বপু ও গোঁফওয়ালা এক মার্কিন চাকুরে ঢাউস সিআরটি মনিটরের সামনে বসে কাজ করছেন। কি–বোর্ডে রীতিমতো ঝড় তুলেও সুবিধা করতে পারছেন না। ‘কমান্ড’ কাজ করছে না বলে একসময় রাগে–ক্ষোভে কি–বোর্ড তুলে নিলেন হাতে। আঘাত করলেন মনিটরে। টেবিল থেকে মনিটর পরে যাওয়ার পরও রাগ কমল না তাঁর। পাশের ডেস্কের সহকর্মী মাথা উঁচিয়ে বিষয়টি আঁচ করার চেষ্টা করলেন। সেদিকে ভ্রুক্ষেপ না করে ক্ষোভে ফুঁসতে থাকা কর্মী লাথি মেরে বসলেন মনিটরে। ২৬ সেকেন্ডের এই ‘ব্যাড ডে’–ই প্রথম ভাইরাল ভিডিও হিসেবে স্বীকৃত। ভিডিওটি ছড়িয়েছিল ই–মেইলে। বুঝতেই পারছেন, ফেসবুক, ইউটিউবের তখনো জন্ম হয়নি।

বিজ্ঞাপন

দেখুন ইতিহাসের প্রথম ভাইরাল ভিডিও ‘ব্যাড ডে’

ভিডিওটি যে ব্যাপকহারে ছড়িয়ে পড়েছে, তা এক বছর বাদে টের পান ওই খ্যাপা চাকুরে। তাঁর নাম ভিনি লিচিআরডি। যুক্তরাষ্ট্রের কলোরাডো রাজ্যের লোরোনিক্স ইনফরমেশন সিস্টেমস নামের এক প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানের শিপিং ম্যানেজার ছিলেন তিনি। ভিডিওটি দাবানলের মতো ছড়াতে ছড়াতে সিএনএন, এনবিসি টিভি থেকে শুরু করে ওয়াল স্ট্রিট জার্নালের মতো সংবাদমাধ্যমের ‘হট টপিক’ হয়ে ওঠে।

মজার ব্যাপার হলো, ভিডিওটি ছিল সাজানো। ১৯৯৭ সালে ডিজিটাল ভিডিও–নিরাপত্তাব্যবস্থা বাজারে এনেছিল লোরোনিক্স ইনফরমেশন সিস্টেমস। মানুষকে এর প্রয়োজনীয়তা বোঝাতেই ভিডিওটি বানানো হয়েছিল। বানানোর পর সিডিতে করে বিলি করা হয় নানান জায়গায়। এরপর তা ছড়িয়ে পড়ে ই–মেইলের মাধ্যমে। বাকিটা ইতিহাস!

একটু থামুন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন