‘লাভ হরমোন’ অক্সিটোসিন

অক্সিটোসিনের অন্য নাম ‘লাভ হরমোন’। সন্তান প্রসবের পর মা–বাবা ও সন্তানের বন্ধন তৈরিতে প্রত্যক্ষভাবে ভূমিকা পালন করে এই হরমোন। এ ছাড়া এই হরমোন চুমু আর আলিঙ্গন, অর্থাৎ শারীরিক সম্পর্কের সময়ও সক্রিয় হয়। আপনি একটা সম্পর্কে ভরসা করবেন কি করবেন না, তা অনেকটাই এই হরমোন নির্ধারণ করে দেয়।

সেরোটোনিনের জন্য প্রকৃতির কাছে যান

আরেকটি হ্যাপি হরমোন হলো সেরোটোনিন। মেজাজ নিয়ন্ত্রণ ছাড়াও ঘুম, হজমক্ষমতা, শিক্ষা, ক্ষুধা, এমনকি শরীরের মেটাবলিজম সিস্টেম সচল রাখতেও সহায়তা করে সেরোটোনিন। সূর্যের আলোয় বা রোদে থাকলে, প্রকৃতির সংস্পর্শে থাকলে, যোগব্যায়াম করলে এই হরমোনের নিঃসরণ বৃদ্ধি পায়।

ব্যথা উপশমকারী এন্ডোরফিন

এন্ডোরফিন প্রকৃতিকভাবে শারীরিক ও মানসিক ব্যথা উপশম করে। যখন আমরা শারীরিক বা মানসিকভাবে আহত হই, এন্ডোরফিন সক্রিয় হয়। হাসলেই এন্ডোরফিন নিঃসৃত হয়। হাসলে আয়ু বাড়ে, হার্ট ভালো থাকে, ওজন কমে, শরীরের রোগ প্রতিরোধক্ষমতা বৃদ্ধি পায়, হজমক্ষমতা বাড়ে। আর এসবের সঙ্গে ভালো থাকে আমাদের মন। তাই মন খুলে হাসুন। গান শুনলে, সিনেমা দেখলে, ব্যায়াম করলে, হাঁটলেও এন্ডোরফিন হরমোনের নিঃসরণ বাড়ে।

সুস্থতা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন