চিভেনিং বৃত্তিতে যুক্তরাজ্যের ফরেন অ্যান্ড কমনওয়েলথ অফিস (এফসিও) ও বিভিন্ন সহযোগী সংগঠন অর্থায়ন করে। ভবিষ্যতের পৃথিবীর জন্য বিভিন্ন দেশের মেধাবী তরুণ শিক্ষার্থী ও ভবিষ্যতের নেতাদের বৃত্তির মাধ্যমে যুক্তরাজ্যের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সুযোগ দিতেই এ বৃত্তি। বৃত্তির আবেদনে শিক্ষার্থীদের সামাজিক দক্ষতা, নেতৃত্বদানের অভিজ্ঞতা, নিজের দেশ ও সমাজের ওপর ইতিবাচক প্রভাব ফেলার পরিকল্পনা ইত্যাদির প্রতি বেশ গুরুত্ব দেওয়া হয়। বৃত্তির মাধ্যমে পড়াশোনা শেষ করে দেশে ফিরে শিক্ষার্থীদের দুই বছর কাজের অঙ্গীকার করতে হয়।

স্নাতক পর্যায়ে দ্বিতীয় শ্রেণির ডিগ্রি আবেদনের ন্যূনতম যোগ্যতা হিসেবে ধরা হয়। যুক্তরাজ্যের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতকোত্তরে ভর্তির সাধারণ নিয়ম অনুসরণ করা হয় এই বৃত্তির ক্ষেত্রে। আবেদনের জন্য কাজের অভিজ্ঞতা থাকাও জরুরি।

চিভেনিং বৃত্তির জন্য আবেদন করতে হয় অনলাইনের মাধ্যমে। যুক্তরাজ্যের বিশ্ববিদ্যালয়ে সংশ্লিষ্ট কোর্সে আবেদন করতে হবে। আবেদনের জন্য বিভিন্ন প্রয়োজনীয় দলিল সংযুক্ত করতে হয়। ইংরেজি ভাষায় দুটি রেফারেন্স লেটার, পাসপোর্ট/জাতীয় পরিচয়পত্র, যে বিশ্ববিদ্যালয়ে ব্যাচেলর পড়েছেন তার সনদ আবেদনের ক্ষেত্রে প্রয়োজন হবে। বৃত্তির জন্য নির্বাচিত হলে যুক্তরাজ্যের বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তির অফার লেটার সংযুক্ত করতে হবে।