মুঠোফোন ব্যবহারের কারণে শিশুর ক্ষতি হচ্ছে জেনেও মা-বাবা শিশুর হাতে ফোন দেন। অনেকে জানান, কিছুতেই শিশুকে মুঠোফোন থেকে দূরে রাখা যায় না, শিশু বুঝতে চায় না, শিখতে চায় না। কিন্তু আপনি কি জানেন, শিশুরা শুধু শেখে না, অনুকরণও করে। আপনি যা করবেন, শিশু ঠিক তা-ই করবে। এখন শিশুর মা-বাবা, কাছের মানুষ যদি তার সামনে অনবরত মুঠোফোন ব্যবহার করেন, তাহলে শিশুর অবুঝ মন এর প্রতি আকর্ষিত হবেই। শিশুর মনে কৌতূহল হবে সবাই যা নিয়ে ব্যস্ত, সেটির ভেতরে কী আছে, তা দেখার জন্য। এখন আবার দেখা যায়, বর্তমানে অনেক অভিভাবক শিশুকে নিয়েও নানা ভিডিও বানায়, যা মুঠোফোনের প্রতি শিশুর আকর্ষণ আরও বাড়িয়ে তোলে।

শিশুকে মুঠোফোন থেকে দূরে রাখতে হলে অভিভাবকদের শিশুর সামনে এর ব্যবহারে বিরত থাকতে হবে। শিশুকে সময় দিতে হবে, শিশুর সামনে আপনি বই পড়েন দেখবেন শিশুও বই পড়তে চাইবে। কারণ, শিশুরা অনুকরণপ্রিয়। আপনি ছাদ বা ব্যালকনিতে গাছের পরিচর্যা করবেন, শিশুও সেটির দিকে আকৃষ্ট হবে। স্মার্টফোনের বাইরে সময় কাটানোর আরও আরও অনুষঙ্গ আছে, যেগুলো শিশুর সামনে করুন। প্রত্যেক মা-বাবার উচিত শিশুর কল্যাণের কথা বিবেচনা করে তাদের সামনে কম স্মার্টফোন ব্যবহার করা; তবেই আপনার শিশুকে স্মার্টফোনের আসক্তি থেকে দূরে রাখতে পারবেন।

হালিমা আক্তার
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়
[email protected]

চিঠি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন