যে বেলায় সূর্য্য পশ্চিম আকাশে হেলে পড়ে তখন রোদের উত্তাপ থাকে না বললেই চলে। সন্ধ্যার ঠিক আগমুহূর্তের এ সময়কে বলে গোধূলি। কেউ কেউ তো এমন বলেন, গরু ধুলা উড়িয়ে গোয়ালে ফেরার বেলা হলো গোধূলি। যে যেভাবেই এর ব্যাখ্যা দিক না কেন সবাই গোধূলি বেলা উপভোগ করতে চায়। সারা দিন সূর্য্যের উপস্থিতির পর এই সময়ের প্রকৃতির রূপ যে কাউকে আনমনা করে তুলতে পারে। কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর তাই তো বলেছেন, ‘ওই সন্ধ্যা আসে, যেন কি শঙ্কা সন্দেহে, ধূসর উত্তরীখানি আবরিয়া দেহে।’ গোধূলি লগ্নে খুলনার বিভিন্ন স্থানে ছোট–বড় সবার আনন্দে মেতে ওঠার মুহূর্তগুলো ক্যামেরায় ধারণ করেছেন সাদ্দাম হোসেন।
১ / ৭
গোধূলি বেলায় গ্রামের আঁকাবাঁকা পথ। দিঘলিয়া, খুলনা
২ / ৭
শরতের কাঁশফুল আর গোধূলিকে সঙ্গী করে কারা যেন নিজেদের ছবি তুলছে। ডুমুরিয়া, খুলনা
৩ / ৭
যেন ঘন কালো মেঘ ফুঁড়ে বেড়িয়ে আসতে চাইছে সূর্য্যের আলো। সে আলোয় মেঠোপথ দিয়ে গরু ফিরছে গোয়ালে। বটিয়াঘাটা, খুলনা
৪ / ৭
গোধূলি বেলায় গ্রামের পথে সাইকেল নিয়ে বের হয়েছে দুই বন্ধু। বটিয়াঘাটা, খুলনা
৫ / ৭
ঘেরে পানি নেই। দিনভর সূর্য্যের তাপে মাটি ফেটে চৌচির। সেখানে গোধূলি বেলায় খেলছে দুই শিশু। কয়রা, খুলনা
৬ / ৭
বিকেলের খেলা শেষে গোধূলির আলো থাকতে থাকতে বাড়ি ফিরছে শিশুরা। বটিয়াঘাটা, খুলনা
৭ / ৭
ফুটবল খেলায় মেতেছে তরুণের দল। বেলা শেষ হয়ে এলেও শেষ হয়নি খেলা। মোংলা, বাগেরহাট