করোনা নিয়ন্ত্রণ করা খুব কঠিন কিছু ছিল না: মির্জা ফখরুল

বিজ্ঞাপন
default-image

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, করোনাভাইরাস নিয়ন্ত্রণ করা খুব কঠিন ছিল না। সরকারের অদক্ষতা ও অযোগ্যতার কারণে আজ সারা দেশে ছড়িয়ে পড়েছে। তাঁর অভিযোগ, সরকার দুর্নীতি করে স্বাস্থ্যব্যবস্থাকে একেবারে ভেঙে দিয়েছে। এখানে মানুষ কোনো স্বাস্থ্যসেবা পাচ্ছে না।

আজ রোববার বিকেলে উত্তরার বাসা থেকে অনলাইনে সিলেটে সাউথ সুরমা ন্যাশনালিস্ট ফোরামের এক অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন মির্জা ফখরুল ইসলাম। তিনি বলেন, হাসপাতালে গেলে অক্সিজেনের অভাব, ভেন্টিলেটর কথা বাদই দেন। গ্লাভস বলুন, মাস্ক বলুন, স্যানিটাইজার বলুন, সুরক্ষাসামগ্রী বলুন—প্রতিটা জিনিসের দাম বেড়ে যাচ্ছে প্রতিদিন। কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই।

করোনাভাইরাস নিয়ন্ত্রণে সরকারের বিরুদ্ধে অদক্ষতার অভিযোগ করে বিএনপির মহাসচিব বলেন, ভিয়েতনাম নিয়ন্ত্রণ করেছে, কিউবা নিয়ন্ত্রণ করেছে, চীনে এত বড় আক্রমণের পরে তারাও নিয়ন্ত্রণ করেছে, নিউজিল্যান্ড নিয়ন্ত্রণ করেছে। অর্থাৎ সরকারের যদি সদিচ্ছা থাকে, তাহলে সে জনগণকে উদ্বুদ্ধ করে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা, মাস্ক পরা ইত্যাদি কাজ করা খুব কঠিন ছিল না।

মির্জা ফখরুল ইসলাম বলেন, ‘আমি মনে করি এখানে যে ভুলগুলো হয়েছে, সেগুলো সরকারের সম্পূর্ণ অজ্ঞতা, অদক্ষতা, অযোগ্যতার কারণে আজ কোবিড সারা দেশে ছড়িয়ে পড়েছে। বারবার ভুল সিদ্ধান্তের ফলে, একবার ঢাকা থেকে চলে যাওয়া আবার ঢাকায় নিয়ে আসা, আবার ঢাকায় কিছু অঞ্চল লকডাউন করা। এখন আমরা খুব দুশ্চিন্তায় আছি যে কোরবানির ঈদ আসছে, এই ঈদে আবার কীভাবে ব্যাপক সামাজিক সংক্রমণ হয়।’

বিএনপির মহাসচিব নেতা-কর্মীদের উদ্দেশে বলেন, ‘সরকার কী করছে না করছে, এটা দেখার দরকার নেই। তারা যা করছে করুক। আপনারা যে উদ্যোগ নিয়েছেন, এই উদ্যোগগুলোকে সফল করার চেষ্টা করুন।’ তিনি আরও বলেন, ‘স্বৈরাচার ফ্যাসিস্ট সরকার একদিকে আমাদের ওপর অত্যাচার করছে, নির্যাতন করছে। আমাদের কাজ করতে দেয় না। তারপরেও বিএনপি কিন্তু মাথা নত করে বসে যায়নি। লড়াই করছে, সংগ্রাম করছে।’

মির্জা ফখরুল ইসলাম বলেন, ‘আমি বিশ্বাস করি, বিএনপি সেই ফিনিক্স পাখির মতো উঠে দাঁড়াবে এবং জয়ী হবে। দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া সামনে আসবেন, আমাদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান আমাদের সঙ্গে আসবেন, এসে গণতন্ত্রকে আমরা প্রতিষ্ঠা করব এবং সব ধরনের সংকটকে মোকাবিলা করে আমরা জয়ী হব, এটাই আমাদের প্রত্যাশা।’

পরে বিএনপির মহাসচিব সিলেটের ন্যাশনালিস্ট ফোরামের উদ্যোগে করোনার চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীদের জন্য অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস ও স্বাস্থ্যসুরক্ষাসামগ্রী বিতরণ কর্মসূচির উদ্বোধন করেন। অনুষ্ঠানের শুরুতে সিলেট বিএনপির প্রয়াত নেতা এম এ হকের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেন।

সাউথ ন্যাশনালিস্ট ফোরামের সভাপতি কামাল উদ্দিন আহমেদের সভাপতিত্বে সদস্যসচিব কামাল হাসানের পরিচালনায় অনলাইন আলোচনায় দলের কেন্দ্রীয় নেতা খন্দকার আবদুল মুক্তাদির, সাখাওয়াত হাসান, কলিম উদ্দিন আহমেদ, সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়র ও বিএনপির নেতা আরিফুল হক চৌধুরী প্রমুখ।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন