বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

নিজেকে বোলিংয়ে আনা মুমিনুল হক সম্ভাবনা তৈরি করেছিলেন প্রথম ওভারে, ল্যাথামের কানায় লেগে ক্যাচ উঠলেও স্লিপে ছিলেন না কেউ। ল্যাথাম অবশ্য পরের ওভারে চড়াও হন মুমিনুলের ওপর। ছয়, চার, ছয়—এই ক্রমে পৌঁছে যান ২৫০ রানে। অবশ্য ঠিক পরের বলে আবার তুলে মারতে গিয়ে খাড়া ক্যাচ তোলেন, ভাঙে ব্লান্ডেলের সঙ্গে ৭৮ বলে ৭৬ রানের জুটি।

প্রায় সাড়ে চার সেশন ব্যাটিং করে ল্যাথাম ২৫২ রান করেছেন ৩৭৩ বলে, ৩৪টি চারের সঙ্গে মেরেছেন ২টি ছয়। এ ইনিংসে তিনি ব্যাটিং করেছেন ৬৭.৫৬ স্ট্রাইক রেটে। ক্যারিয়ারে ১২টি শতক ইনিংসে কিউই অধিনায়কের এটিই সবচেয়ে দ্রুতগতির। ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ ২৬৪ রান ছুঁতে না পারলেও হ্যাগলি ওভালের সর্বোচ্চ ইনিংসটা খেলেছেন ল্যাথাম।

ল্যাথাম ফিরলেও অবশ্য নিউজিল্যান্ডের রানের গতি কমেনি। মাত্র ৫৬ বলে অর্ধশতক পূর্ণ করেন ব্লান্ডেল। দ্বিতীয় সেশনের ড্রিংকস বিরতির সময়ই ইনিংস ঘোষণা করে নিউজিল্যান্ড। ব্লান্ডেল ৫৭ রান করেন মাত্র ৬০ বলে, মারেন ৮টি চার।

এর আগে প্রথম সেশনে ৪ উইকেট হারালেও ৪০০ পেরিয়ে যায় নিউজিল্যান্ড, প্রথম দিন যারা শেষ করেছিল ১ উইকেটে ৩৪৯ রান নিয়ে।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন