default-image
>

ইমরুল খেলাটাকে কেবল খেলা হিসেবেই দেখার অনুরোধ জানিয়েছেন। কোনো খেলোয়াড়কে নিয়ে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে ট্রল, সেই খেলোয়াড়ের ক্ষতি করে বলেই অভিমত তাঁর

জাতীয় লিগে ভালো পারফর্ম করে ফিরেছিলেন ভারত সফরের টেস্ট দলে। কিন্তু ইন্দোর ও কলকাতা টেস্টের চার ইনিংসে ইমরুলের স্কোর ছিল ৬, ৬, ৪ ও ৫। মাঠের বাইরের বাজের পারফরম্যান্সের পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তিক্ত সমালোচনার শিকার হন ইমরুল। ফেসবুকে ইমরুলকে নিয়ে সীমাহীন ট্রল শুরু হয়। প্রথম আলোর সঙ্গে এসব নিয়েও কথা বলেছেন তিনি।

দেশের স্বার্থেই ক্রিকেটারদের ব্যঙ্গ না করে সমর্থন দেওয়ার আহ্বান ৩২ বছর বয়সী এই ব্যাটসম্যানের, ‘অনেক ক্রিকেটার আছে যারা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের কারণে নষ্ট হয়ে গেছে। চাপ নিতে পারেনি। আমি বলব, যদি আপনারা দেশের ভালো চান, দয়া করে এসব বন্ধ করুন।’
সমালোচনার নামে ক্রিকেটারদের ব্যঙ্গ করার সংস্কৃতির পরিণতি খুব ভালো হবে না ইঙ্গিতে সেটাই বললেন ইমরুল, ‘এসব থেকে বের না হলে ক্রিকেটারদের মানসিক বিকাশে সমস্যা হবে। ক্রিকেটারদের আরও অনেক দেওয়ার সামর্থ্য আছে। উৎসাহ দিলে সেটা হবে। আমরা হয়তো আরও কয়েক বছর খেলব। এরপর আরেক প্রজন্ম আসবে। কিন্তু আমরা যদি এদের সমর্থন না করি, তাহলে দেখবেন বাংলাদেশ ক্রিকেট যেখানে আছে সেখানেই থেকে যাবে। দিন শেষে দেশেরই ক্ষতি হচ্ছে। একটা মানুষকে আজ আপনি ছোট করছেন। ছোট করে মজা পাচ্ছেন। ছেলেটা যদি মনে আঘাত পায়, তাহলে ওর নিজের জন্য ক্ষতি, দেশের জন্য ক্ষতি।‘
ক্রিকেটকে শুধুই খেলা হিসেবে দেখুক সমর্থকেরা। আত্মসম্মান ও দেশাত্মবোধ ক্রিকেটে টেনে না আনুক, এটাই ইমরুলের চাওয়া, ‘আমরা ক্রিকেট খেলাটাকে দেশপ্রেম থেকে শুরু করে আরও অনেক কিছু ভেবে বসি। কিন্তু অন্য ক্ষেত্রে এত ভালোবাসা থাকে না। অন্য দেশের মানুষ খেলাটাকে খেলা হিসেবেই নেয়। দিন শেষে এটা শুধুই খেলা।’

বিজ্ঞাপন
ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন