নিজেদের টি-টোয়েন্টি ইতিহাসে সর্বোচ্চ ২৫৮ রান করার পর ওয়েস্ট ইন্ডিজের ড্রেসিংরুমে নিশ্চয় সিরিজ জয়ের আগাম উদ্‌যাপন শুরু হয়ে গিয়েছিল। বরাবরই আমুদে ক্যারিবীয়রা সেটা না করলেই বরং অবাক হওয়ার মতো ব্যাপার ছিল। শুধু তারা কেন, রানের এভারেস্ট গড়ার পর সিরিজে এগিয়ে থাকা যেকোনো দলেরই এমন আত্মবিশ্বাসী হয়ে ওঠার কথা।

কিন্তু কুইন্টন ডি কক-রিজা হেন্ডরিক্‌সরা বোধ হয় ইটের জবাব পাটকেলে দিতে চেয়েছিলেন। সেঞ্চুরিয়নের সুপারস্পোর্ট পার্কে চার-ছক্কার মহাপ্রলয় বইয়ে দেওয়া ডি ককের সেঞ্চুরি আর হেন্ডরিক্‌সের ঝোড়ো ফিফটিতে ৭ বল আর ৬ উইকেট অক্ষত রেখেই জিতে গেছে দক্ষিণ আফ্রিকা। টি-টোয়েন্টিতে রান তাড়ায় প্রোটিয়ারা গড়েছে বিশ্ব রেকর্ড। সেই সঙ্গে তিন ম্যাচ সিরিজে ১-১ সমতা এনেছে স্বাগতিকেরা।

আরও পড়ুন

৩৫ ছক্কার ম্যাচে রান তাড়ায় বিশ্ব রেকর্ড দক্ষিণ আফ্রিকার

এমন হার স্বাভাবিকভাবেই অবিশ্বাস্য লাগছে রোভম্যান পাওয়েলের। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে এই সিরিজ দিয়েই ওয়েস্ট ইন্ডিজ টি-টোয়েন্টি দলের স্থায়ী নেতৃত্ব পাওয়া পাওয়েল পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে বলেছেন, ‘এটা একটা পাগলাটে ম্যাচ। ইনিংস শেষে ভেবেছিলাম, আমরা পর্যাপ্ত রান করেছি। কিন্তু ডি কক ও হেন্ডরিক্‌সকে কৃতিত্ব দিতেই হয়। ওরা প্রথম বল থেকেই আমাদের চাপে রেখেছে। আজকের দিনটা ফাস্ট বোলারদের ছিল না। ওরা রান আটকাতে সব ধরনের চেষ্টা করেছে, বলের গতি কমিয়েছে। কিন্তু কিছুতেই কাজ হয়নি।’

গতকালই ১৮ বলে ৪৩ রানের বিস্ফোরক ইনিংস খেলে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে জিতিয়েছেন পাওয়েল। ২৪ ঘণ্টা না পেরোতেই মুদ্রার অন্য পিঠও দেখে ফেললেন। রানের স্রোত বিবেচনায় নিলে আজ তাঁর ইনিংস খুব একটা গতিশীল (১৯ বলে ২৮) মনে হয়নি। ফিল্ডিংয়ের সময় চার বাঁচাতে গিয়ে পায়ে আঘাতও পেয়েছেন। আইপিএল ফ্র্যাঞ্চাইজি দিল্লি ক্যাপিটালসে মোস্তাফিজুর রহমানের এই সতীর্থকে পরে গ্লানিমাখা এক রেকর্ডের সাক্ষী হয়েই মাঠ ছাড়তে হয়েছে।

আরও পড়ুন

৫০০ রানের প্রথম আন্তর্জাতিক টি–টোয়েন্টি ও সেঞ্চুরিয়নে আরও যত রেকর্ড

হারের পর দক্ষিণ আফ্রিকার অধিনায়ক মার্করামের সঙ্গে পাওয়েলের করমর্দন
ছবি : এএফপি

তবে ধুমধারাক্কা ক্রিকেটের এই জামানায় এমন অভিজ্ঞতা নতুন নয় বলেই জানালেন পাওয়েল, ‘টি-২০ সংস্করণে এ নিয়ে সাতবার আমার দল ২৪০ থেকে ২৫০ রান করার পরও হেরেছে। এ রকম হারে আমি অভ্যস্ত হয়ে পড়েছি। তবে এই ম্যাচ দর্শকদের জন্য ভালো। তারা অনেক বিনোদিত হয়েছে।’