জয় শাহ আরও লিখেছেন, ‘নারী ক্রিকেটারদের টেস্টের ম্যাচ ফি ১৫ লাখ, ওয়ানডের ম্যাচ ফি ৬ লাখ ও টি-টোয়েন্টির ম্যাচ ফি ৩ লাখ রুপি করা হয়েছে। বেতনে বৈষম্য কমাতে আমরা নারী ক্রিকেটারদের কাছে দায়বদ্ধ ছিলাম। সহযোগিতার জন্য অ্যাপেক্স কাউন্সিলের সব সদস্যকে ধন্যবাদ।’

কয়েক দিন আগে বিসিসিআইয়ের সভাপতি পদ থেকে সরে দাঁড়ান সৌরভ গাঙ্গুলী। তাঁর জায়গা নিয়েছেন ভারতের আরেক সাবেক ক্রিকেটার রজার বিনি। চমক জাগানিয়া এক সিদ্ধান্ত দিয়েই যাত্রা শুরু করল রজার বিনির নেতৃত্বাধীন বোর্ড।

সর্বশেষ বার্ষিক সাধারণ সভায় নারী ক্রিকেটারদের আইপিএল আয়োজনের ব্যাপারেও সিদ্ধান্ত হয়। আগামী বছর শুরু হবে এর প্রথম আসর। যেখানে অংশগ্রহণ করবে পাঁচটি দল। ভারতের আগে চলতি বছর নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ড পুরুষ ও নারী ক্রিকেটারদের ম্যাচ ফি সমান করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল।

২০১৭ সালে নারী বিশ্বকাপের ফাইনালে ওঠার পর থেকেই ভারতের নারী ক্রিকেটের জনপ্রিয়তা বাড়তে শুরু করে। গত নারী এশিয়া কাপে ফাইনালে শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয় ভারতের নারী দল। এ ছাড়া চলতি বছর বার্মিংহামে হওয়া কমনওয়েলথে রুপা জেতে দলটি।