কীভাবে, সেটাই ব্যাখা করেছেন বার্সেলোনার সাবেক স্প্যানিশ মিডফিল্ডার সেস ফ্যাব্রিগাস। মেসি-জাভি-ইনিয়েস্তাদের সাবেক এই সতীর্থ জানিয়েছেন, চুয়ামেনিকে কেনার জন্য বার্সেলোনাকে পরামর্শ দিয়েছিলেন তিনি, কিন্তু আর্থিক অসংগতির কারণে ফ্যাব্রিগাসের কথা রাখতে পারেননি বার্সা সভাপতি হোয়ান লাপোর্তা।

default-image

ক্যারিয়ারের বালুকাবেলায় এসে ফুটবলপ্রেমীদের চমকে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ফ্যাব্রিগাস। আর্সেনাল, চেলসি ও বার্সেলোনার সাবেক এই মিডফিল্ডার এবার খেলবেন দ্বিতীয় বিভাগে। ইতালির দ্বিতীয় বিভাগের দল কোমোর সঙ্গে দুই বছরের চুক্তি করেছেন ফ্যাব্রিগাস। গতকাল কোমোর খেলোয়াড় হিসেবে আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলনও সেরে ফেলেছেন তিনি। কোমোর খেলোয়াড় হওয়ার পর স্প্যানিশ অনুষ্ঠান ‘এল প্রগ্রামা দে কোপে’ অতিথি হয়ে গিয়েছিলেন ফ্যাব্রিগাস। সেখানেই চুয়ামেনিকে নিয়ে কথা বলেছেন স্পেনের হয়ে বিশ্বকাপ ও ইউরোজয়ী এই তারকা।

কথা বলেছেন প্রিয় বন্ধু লিওনেল মেসিকে নিয়েও। ফরাসি ক্লাব মোনাকো থেকে কোমোয় গিয়েছেন ফ্যাব্রিগাস। মোনাকোতে থাকার সময় চুয়ামেনিকে পেয়েছেন সতীর্থ হিসেবে। তরুণের প্রতিভার ছটা সামনাসামনিই দেখেছেন ফ্যাব্রিগাস। দেখেই বুঝেছেন, এই ছেলে উন্নতি করবে অনেক।

চেয়েছিলেন, বার্সেলোনা যেন চুয়ামেনিকে কেনে, ‘আমি চুয়ামেনিকে বেশ ভালো করে চিনি। আমি বার্সেলোনার কর্তাব্যক্তিদের সঙ্গে ওর ব্যাপারে কথা বলেছিলাম, যেন ওকে কেনা হয়। ও ভবিষ্যতের তারকা। কিন্তু আর্থিকভাবে বার্সেলোনা তখন সচ্ছল ছিল না, তাই ওকে কিনতে পারেনি।’

default-image

ফ্যাব্রিগাস কথা বলেছেন মেসিকে নিয়েও। এই মিডফিল্ডারের প্রত্যাশা, মেসি আবারও যেন বার্সেলোনায় ফেরেন, ‘বার্সেলোনা ভক্ত হয়েই বলছি, আশা করি, মেসি একদিন বার্সেলোনায় ফিরবে। পিএসজির সঙ্গে ওর চুক্তির আর এক বছর বাকি আছে। আমার খুব ভালো লাগবে ও যদি বার্সায় ফেরে। এটা বার্সেলোনা ও বার্সেলোনা-ভক্তদের স্বপ্ন। আমি শুধু ভক্ত হিসেবেই বলছি।’

মোনাকোর সঙ্গে চুক্তি শেষের পর ক্লাবহীনই ছিলেন ফ্যাব্রিগাস। লাস পালমাসের মতো স্পেনের নিচু সারির বেশ কিছু ক্লাবের সঙ্গে তাঁর নাম জড়ানো হয়েছিল এর মধ্যে। কিন্তু এই বয়সে এসে নিজের দেশের কোনো ক্লাব নয়, বরং আবারও বিদেশে চ্যালেঞ্জ নিতে যাচ্ছেন ফ্যাব্রিগাস। ২০২৪ সাল পর্যন্ত কোমোতে খেলবেন বিশ্বকাপ ও ইউরোজয়ী এই মিডফিল্ডার।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন