ঢাকায় কমলাপুর বীরশ্রেষ্ঠ মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে আগামীকাল শুরু হবে অনূর্ধ্ব-১৫ নারী সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ। প্রতিটি ম্যাচই শুরু হবে বিকেল সাড়ে চারটায়। এবারের টুর্নামেন্টে অংশ নিচ্ছে না বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ভারত। তিন দেশের এই টুর্নামেন্টে তৃতীয় দল নেপাল। রাউন্ড রবিন লিগ পদ্ধতিতে হবে খেলা। প্রতিটি দল দুটি করে ম্যাচ খেলবে। পয়েন্ট টেবিলে শীর্ষ দেশ হবে চ্যাম্পিয়ন।

বয়সভিত্তিক অনূর্ধ্ব-১৫ সাফের এটি চতুর্থ আসর। প্রতিপক্ষ ভুটান বলেই কিনা বেশি আত্মবিশ্বাসী বাংলাদেশ। এর আগে তিনবারই ভুটানের বিপক্ষে জয় পেয়েছে বাংলাদেশের মেয়েরা। ২০১৭ সালে প্রথমবার গ্রুপ পর্বে বাংলাদেশ ৩-০ গোলে হারিয়েছিল ভুটানকে। ২০১৮ সালে সেমিফাইনালে বাংলাদেশ জেতে ৫-০ গোলের বড় ব্যবধানে। আর ২০১৯ সালে ভুটানকে ২-০ গোলে হারায় বাংলাদেশ।

এবারও ভুটানের বিপক্ষে জয় দিয়ে টুর্নামেন্ট শুরু করতে চান বাংলাদেশের কোচ গোলাম রব্বানী, ‘সাফের এই টুর্নামেন্টে খেলার জন্য গত জুন থেকে এই মেয়েরা কঠোর অনুশীলন করছে। মেয়েরা জয়ের জন্যই আগামীকাল মাঠে নামবে।’

টুর্নামেন্টে অংশ নেওয়া ২৩ খেলোয়াড়ের মধ্যে শুধু ডিফেন্ডার জয়নব বিবির আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্টে অংশ নেওয়ার অভিজ্ঞতা আছে। বাকিরা সবাই প্রথমবার খেলতে নামবে আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায়। জেএফএ কাপ ও ইউনিসেফ অনূর্ধ্ব-১৬ টুর্নামেন্ট থেকে বাছাই করা মেয়েদের নিয়ে চ্যালেঞ্জটা শুরু করতে চান গোলাম রব্বানী।

এই দলের ফরোয়ার্ড লাইনে খেলবে থুইনু মারমা, উমেহলা মারমা, লিভা আক্তার। মাঝমাঠ সামলাবে মুনকি আক্তার, নুসরাত জাহান, তৃষ্ণা রানী। বাংলাদেশ দলের রক্ষণে আছে অধিনায়ক রুমা, জয়নব বিবি ও অর্পিতা বিশ্বাস। গোলপোস্টের নিচে থাকবে সঙ্গীতা রানী দাস।

আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্ট শুরুর আগে আজ তিন দলের কোচ ও অধিনায়কদের নিয়ে বাফুফে ভবনে হয়ে গেল আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলন। অধিনায়ক রুমা অনুপ্রেরণা খুঁজে নিচ্ছে গত সাফের চ্যাম্পিয়ন জাতীয় দলের সাফল্য থেকে, ‘এটা সত্যি এর আগে আমরা কোনো আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলিনি। কিন্তু এই টুর্নামেন্টে নিজেদের প্রমাণ করতে চাই আমরা। গত জুন থেকে এ জন্য কঠোর অনুশীলন করছি। তা ছাড়া সাফে ভুটানকে ৮ গোল দেওয়ার ম্যাচে বড় আপুরা লিপস্টিক মেখে গোল উদ্‌যাপন করেছিল। আমরা ওই ঘটনা থেকেও অনুপ্রেরণা খুঁজে নিচ্ছি।’

করোনার কারণে আন্তর্জাতিক যুব ফুটবল বন্ধ ছিল প্রায় তিন বছর। আবারও মাঠে খেলা ফেরায় খুশি কোচ গোলাম রব্বানী। এই টুর্নামেন্টকে দেখছেন নতুন প্রজন্মের ফুটবলারদের উঠে আসার প্রতিযোগিতা হিসেবে, ‘অনেক দিন পর বয়সভিত্তিক যুব ফুটবল মাঠে গড়াচ্ছে। আগামী বছর মেয়েদের এএফসি অনূর্ধ্ব-১৭ বাছাইপর্ব আছে। এখান থেকে ওরা যা শিখবে, আশা করি, তা ভবিষ্যতে কাজে দেবে।’

বাংলাদেশের মতোই ভুটানও একেবারে নতুন দল নিয়ে খেলতে নামবে ঢাকায়। প্রথমবারের মতো ভুটানের মেয়েদেরও আন্তর্জাতিক অভিষেক হতে যাচ্ছে এই সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ দিয়ে।

ভুটানের কোচ এনগাওয়াং ইয়াংচেন জমজমাট ম্যাচই আশা করছেন আগামীকাল, ‘আমার মেয়েরা এই টুর্নামেন্ট নিয়ে খুবই রোমাঞ্চিত। কারণ, এটা ওদের প্রথম আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্ট। স্কুল শেষে মেয়েরা প্রতিদিন দু-তিন ঘণ্টা অনুশীলন চালিয়ে গেছে। সাফের জন্য তিন মাসের প্রস্তুতি নিয়ে এসেছি। আশা করি, মেয়েরা কাল ভালো ফুটবল উপহার দেবে।’