কোস্টারিকা দল চাচ্ছিল, কারও পাসপোর্টে যেন ইরাকের ইমিগ্রেশন সিল না পড়ে। তবে ইরাকি কর্তৃপক্ষ অনুরোধ রাখেনি।

এরপর কোস্টারিকান ফুটবল ফেডারেশনের (এফসিআরএফ) পক্ষ থেকে বিবৃতি দিয়ে জানানো হয়, ইরাকের বিপক্ষে ম্যাচটি বাতিল করা হয়েছে। কারণ, উল্লেখ করে লেখা হয়, ‘পাসপোর্টে সিল না মারার বিষয়ে যে সমঝোতা হয়েছিল, সেটি রক্ষা করা হয়নি। এই কারণে ইরাকে প্রবেশ না করার বিষয়ে সিদ্ধান্ত হয়েছে, এবং ম্যাচটি বাতিল করা হয়েছে।’

‘ইরাকের মতো দেশগুলাতে প্রবেশ এবং পাসপোর্টে সিল থাকা ভবিষ্যতে অন্য দেশে প্রবেশে সমস্যা তৈরি করতে পারে। অফিসিয়াল প্রতিনিধি হিসেবে আমাদের বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে যেতে হয়, বিশেষ করে যুক্তরাষ্ট্রে। আমাদের তখন জিজ্ঞেস করা হতে পারে ইরাকে কেন গেছেন।
কোস্টারিকা ফুটবল ফেডারশনের মুখপাত্র জিনা এসকোবার

কোস্টারিকান ফুটবল ফেডারেশনের মুখপাত্র জিনা এসকোবার দেশটির রেডিও চ্যানেল কলাম্বিয়া দেপোর্তিবো জানান, দুই দেশের সরকার আগেই একমত হয়েছিল যে পাসপোর্ট ছাড়াই কোস্টারিকাকে ইরাকে প্রবেশ করতে দেওয়া হবে। কিন্তু সীমান্তে যাওয়ার পর সেটি মানা হয়নি।

কোস্টারিকা পাসপোর্টে ইরাকের সিল কেন চায় না, সেটির কারণ ব্যখ্যা করতে গিয়ে এসকোবার বলেন, ‘ইরাকের মতো দেশগুলাতে প্রবেশ এবং পাসপোর্টে সিল থাকা ভবিষ্যতে অন্য দেশে প্রবেশে সমস্যা তৈরি করতে পারে। অফিসিয়াল প্রতিনিধি হিসেবে আমাদের বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে যেতে হয়, বিশেষ করে যুক্তরাষ্ট্রে। আমাদের তখন জিজ্ঞেস করা হতে পারে ইরাকে কেন গেছেন। এ ধরনের সমস্যা যতটা সম্ভব এড়িয়ে চলতে হবে।’

ইরাকে প্রবেশ না করে কোস্টারিকার খেলোয়াড়রা এরই মধ্যে কুয়েতের হোটেলে ফিরে গেছে। আগামীকাল কাতারে পৌঁছাবে দলটি। বিশ্বকাপে কোস্টারিকার প্রথম ম্যাচ আগামী বুধবার স্পেনের বিপক্ষে।