নবী অবশ্য দায়িত্ব থেকে সরে দাঁড়ানোর কারণ লুকাননি। সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে টিম ম্যানেজমেন্ট ও নির্বাচকদের দিকে আঙুল তুলে তিনি লিখেছেন, ‘গত এক বছর আমাদের প্রস্তুতি যেমন ছিল, সেটা অধিনায়ক হিসেবে আমার কাছে বড় টুর্নামেন্টের জন্য যথেষ্ট মনে হয়নি। এ ছাড়া সম্প্রতি আমাদের কয়েকটি সফরে ম্যানেজমেন্ট ও নির্বাচন কমিটির সিদ্ধান্তের সঙ্গে আমি একমত ছিলাম না। যা দলের ভারসাম্যে ব্যাঘাত ঘটিয়েছে।’

এর সঙ্গে নবী যোগ করেন, ‘সবার প্রতি শ্রদ্ধা রেখে আমি এ কারণে নেতৃত্ব থেকে সরে দাঁড়াচ্ছি। দলের প্রয়োজনে আমি নিজ দেশের হয়ে খেলে যেতে চাই। এবারের বিশ্বকাপে বৃষ্টির কারণে ম্যাচগুলো পরিত্যক্ত হয়েছে। তবু দর্শকেরা মাঠে এসেছে। আমি সবাইকে ধন্যবাদ দিতে চাই।’

আফগানিস্তান এবারের বিশ্বকাপে কোনো ম্যাচে জয়ের দেখা পায়নি। নিজেদের পারফরম্যান্স নিয়ে নবীর মন্তব্য ছিল এমন, ‘আমাদের বিশ্বকাপ–যাত্রা শেষ। যে ফল পেয়েছি, সেটা আমাদের সমর্থক বা আমরা প্রত্যাশা করিনি। আমরা খেলোয়াড়েরাও এবারের বিশ্বকাপে আফগানিস্তান দলের পারফরম্যান্সে হতাশ।’